উওর বঙ্গ ট্যুর ঢাকা-নাটোর-বগুড়া-ঢাকা

টার্গেট: নাটোর রাজ বাড়ি> উওরা গণ ভবন >নাটোর এর কাচা গোল্লা > বগুড়ার মহাস্থানগড় > বেহুলার বাসর ঘর> বগুড়ার দই> চুন্নু চাপ > আর সাত মাথা মোড়ের স্ট্রিট ফুড

কল্যান পুর বাস স্টেন্ড থেকে উওর বঙ্গের বাস ছেড়ে যায়।
নাটোরের ভাড়া ৪০০ টাকা।
যাত্রা আরাম্ভ হয় রাত ১২ টায় এবং নাটোর পৌছায় সকাল ৬ টায়।
৬ টায় নাটোর মাদ্রাসা মোরে নামিয়ে দেয়, সেখন থেকে রাজবাড়ী হেটে যাওয়া যায় ১০ মিনিট লাগবে, আর অটো ৫-১০ টাকা করে ভাড়া নিবে।
রাজভবনে প্রবেশ ফি ১০ টাকা। ৭.৩০ এর মধ্যে রাজভবন দেখা শেষে চলেগেলাম কালিবাড়ি কাচাগোল্লার দোকানে।
অটো ভাড়া ৫ টাকা নিবে।
তারপড় কাচা গোল্লা নিয়ে পচুর হোটেল এ গিয়ে সকালের নাস্তা শেষ করে নিলাম। ভাড়া নিলো ৫ টাকা করে।
*রাজবাড়ী, কাচাগোল্লার দোকান, পচুর হোটেল এগুলো মাদ্রাসা মোর থেকে খুব বেশি দূরে না।
আর অটো ভাড়া ৫-১০ টাকার মধ্যে।
নাস্তা শেষে আটো যোগে চলে গেলাম উওরা গণ ভবনে,
অটোভাড়া ১০ টাকা।

গনভবন ঘুরে চলে এলাম মাদ্রাসা মোর বাস স্টেন্ডে, বগুড়ার বাস ২০-৩০ মিনিট পড় পড় ছেড়ে যায়,ভাড়া ৬০ টাকা
দুপুর ১২.৩০ এ বগুড়া পৌছে চলে গেলাম সাত মাথা মোড়ে দুপুরের খাবার খেতে।
এর পড় এসিয়ান সুইটস থেকে বিখ্যাত বগুড়ার দই কিনে জেলা স্কুল মাঠে বসে খেয়ে নিলাম। (২০০ টাকা কেজি)

বগুড়ায় আছে রানার শপিং মল, খুব আধুনিক শপিংমলটি।
শহরেই আছে মুশফিকুর রহিম এর বাড়ি।
এর পড় সিএনজি যোগে চলে গেলাম মহাস্থানগড় ভাড়া ৩০ টাকা করে।
মহাস্থানগড় একটি মাজার, যাদুঘর, আর উঁচু নিচু কিছু টিলা দেখতে পাবেন।
এগুলো দেখে চলে গেলাম বেহুলার বাসর ঘরে ।
আটো ভাড়া ১০ টাকা করে।
★আমরা আসলে ছবিতে যে মহাস্থানগড় দেখি সেটা বেহুলার বাসর ঘর তাই এটা মিস করা যাবে না।

আবার বগুড়া শহরে চলে গেলাম , রাত ৮ টায় কলোনির চুন্নু চাপ ও লুচি খেলাম।
লাস্টে আবার চলে এলাম সাত মাথা মোড়ে।
স্ট্রিট ফুড ট্রাই করলাম, মোটামুটি ভালো ছিলো।
*বগুড়া শহরে রিক্সা ভাড়া ১০-৩০ টাকার মধ্যে হবে।

রাত ১১ টার বাসে চেপে ঢাকায় পৌছি সকাল ৫ টায়।
বাস ভাড়া বগুড়া > ঢাকা ৩৫০ টাকা।

জনপ্রতি খরচ হয়েছিলো ১৫০০ টাকা।

source:

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com