একা ভ্রমণে যেভাবে গড়ে তুলবেন বন্ধুত্ব

মানুষের জীবনে বন্ধুত্ব একটি পরম পাওয়া। সে সব আমরা প্রতিনিয়তই উপলব্ধি করি। তবে যখন আপনি দেশের বাহিরে কিংবা অচেনা কোথাও ভ্রমণে যাবেন সেখানে বন্ধুহীন হয়ে পড়াটা স্বাভাবিক। তাছাড়া সবাই খুব সহজেই অন্যের সাথে মিশতেও পারে না। একা ভ্রমণে গেলে বিষয়টি আরো বেশি প্রকট হয়ে পড়ে। তাই বিদেশ ভ্রমণে গিয়ে কিভাবে সহজেই বন্ধুত্ব করবেন সে বিষয় নিয়েই আজকের আলোচনা-

ফ্রেন্ডস অফ ফ্রেন্ডস:

কোথাও ভ্রমণের পূর্বে বন্ধু বান্ধব কিংবা আত্মীয় স্বজনের সাথে বিষয়টা শেয়ার করুন এবং সেখানে তাদের কোন পরিচিত আছে কিনা জেনে নিন। তাহলে আপনার ওখানে গিয়ে নিঃসঙ্গতা কিংবা নিরাপত্তা হীনতায় ভুগতে হবে না কিংবা খুব সহজেই বন্ধু হতে পারেন।

ইভেন্টস:

আপনি যদি সঙ্গীত, শিল্প, সাহিত্য কিংবা চিত্রকলা পছন্দ করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য বিদেশে বন্ধু বানানো খুবই সহজ। স্থানীয় ইভেন্টস সমূহ যেমন কনসার্ট, চিত্র প্রদর্শনী কিংবা ফেস্টিভাল সমূহে অংশগ্রহণ করুন। এইসব স্থানে আপনি সম মন মানুষিকতার ব্যক্তির সাথে পরিচিতি এবং বন্ধুত্ব করতে পারেন।

ডেটিং সাইট:

আমাদের দেশে না হলেও বিদেশে এই ধরণের ডেটিং সাইট গুলো খুবই জনপ্রিয়। যেখানে ঘুরতে যাবেন সেখানকার স্থানীয় জনপ্রিয় সাইট গুলো জেনে নিন এবং সহজেই বন্ধু বানিয়ে নিন। তবে এক্ষেত্রে কার সাথে বন্ধুত্ব করছেন সেটাও খেয়াল রাখবেন৷ কেনোনা এখানে নিরাপত্তার বিষয়টিও চলে আসে অবধারিতভাবে।

স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে যুক্ত হন:

বিভিন্ন সোশাল ভলান্টিয়ারিং প্রোগ্রামে যদি সম্ভব হয় জড়িয়ে পড়ুন। এটি আপনাকে স্থানীয় মানুষ এবং তাদের আচার আচরণ বুঝতে এবং বন্ধু বানাতে সহায়তা করবে।

একা ভ্রমণে বন্ধুত্ব গড়ে তুলবেন যেভাবে

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহে যাতায়াত:

সর্বশেষ এবং সবচেয়ে কার্যকরী একটি মাধ্যম হলো ধর্মীয় উপাসনালয় সমূহ। চার্চ, মসজিদ, মন্দির কিংবা আপনার নিজের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গুলোয় প্রার্থনা করতে যেতে পারেন। এটি আপনাকে খুব সহজেই বন্ধু বানাতে সহায়তা করবে৷

স্থানীয় ভাষা আয়ত্ত করতে চেষ্টা করুন:

ঘুরতে গেলে সেখানকার স্থানীয় ভাষা জানা থাকলে আপনার জন্য ভ্রমণে বন্ধু বানানো একদমই সহজ ব্যাপার। ভ্রমণের পূর্বে সব সময় স্থানীয় ভাষা সম্পর্কে জেনে নিন এবং যতটুকু সম্ভব তা আয়ত্ত করতে চেষ্টা করুন।

স্থানীয় কমিউনিটি গ্রুপে যুক্ত হন:

ভ্রমণে যাবার পূর্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্থানীয় কমিউনিটি গ্রুপ গুলো খুঁজে নিন। এইসব কমিউনিটি আপনাকে স্থানীয়দের সম্পর্কে যথেষ্ট তথ্য প্রদান করবে এবং আপনি অনেক বন্ধু খুঁজে পাবেন এখানে।

টুরিস্ট হোটেল গুলোয় অবস্থান করুন:

যেসব হোটেলে টুরিস্টদের আধিক্য বেশি সেই সব হোটেল গুলোয় অবস্থান করতে চেষ্টা করুন। এতে বিভিন্ন স্থান হতে আসা টুরিস্টদের সাথে বন্ধুত্ব করা এবং ভ্রমণ অভিজ্ঞতা শেয়ার করা অনেক সহজ হয়ে পড়ে।

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com