ঘুরে আসুন অপরূপ সৌন্দর্যময় টাংগুয়ার হাওর।

আমাদের ১ দিনের হাওর ভ্রমণের খুঁটিনাটি:-
আমরা ৮ জন ঢাকার ফকিরাপুল থেকে সুনামগঞ্জ এর উদ্যেশ্যে বাসে উঠলাম রাত ১০ টায়। (টিকেট ৫৫০/-)। ভোর ৬ টায় পৌঁছালাম সুনামগঞ্জ পুরাতন বাস স্ট্যান্ড এ। ওখানে নেমে সকালের নাস্তা সেরে উঠলাম তাহিরপুরগামী লেগুনায়। রিজার্ভ করার দরকার নাই, লোকাল হিসেবে ওগুলা যায়, প্রতি জন ৮০ টাকা করে ভাড়া। প্রায় দেড় ঘন্টা পর আমরা তাহিরপুর উপজেলার সামনে নামলাম। কিছুদূর হেঁটে নৌকার ঘাটে পৌঁছালাম। ১ দিনের জন্যে নৌকা দরদাম করা শুরু করলাম। আমরা ৩০০০ দিয়ে ১ দিন ১ রাত এর জন্য নৌকা ঠিক করলাম। নৌকা দরদাম করে ঠিক করতে হবে, প্রথমে অনেক ভাড়া চাইবে। রান্নার বাবুর্চির জন্য এক্সট্রা টাকা চাইতে পারে, আমাদের ২ জন মাঝি রান্না নিজেরা রান্না পারত, তাই আমাদের ঝামেলা হয়নাই।
এরপর ঘাট সংলগ্ন বাজার থেকে আমরা বাজার করে আনলাম প্রায় ১৫০০ টাকার মত। কিছুক্ষণ পর আমরা রওনা দিলাম হাওর এর উদ্যেশ্যে।
হাওরের অপরূপ সৌন্দর্য দেখতে দেখতে ঘন্টাখানেক পর আমরা এলাম ওয়াচ টাওয়ারে। আমরা পানিতে নেমে গোসল করলাম,খুব ই স্বচ্ছ আর পরিষ্কার পানি, গভীরতা ও কম, ইচ্ছামত পানিতে লাফাতে পারবেন, তবে সাঁতার না জানলে অবশ্যই লাইফ জ্যাকেট নিয়ে যাবেন। মাঝিদের রান্না শেষ হলে আমরা দুপুরের খাবার পর্ব সারলাম। এরপর আমাদের নৌকা আবার চলতে শুরু করল। বিকালের দিকে টেকেরঘাট পৌঁছালাম। ওখানে নেমে প্রথমেই মোটরবাইক এ করে রওনা হলাম বারিক্কাটিলার উদ্যেশ্যে। প্রতি বাইক এ ২ জন করে আসা যাওয়া মোট ২০০ টাকা। আধাঘন্টা পর ওখানে পৌঁছে দেখলাম জাদুকাটা নদী, শাহ আরেফিনের মাজার আর ঝর্ণা। যাই হোক, এরপর টেকেরঘাট ফিরে এসে স্থানীয় বাজারে চা নাস্তা খেলাম। আশেপাশে ঘুরাঘুরি করলাম। কেয়ারী (নিলাদ্রী) লেক দেখলাম। রাতে নৌকায় ফিরে রাতের খাবার সারলাম।
এরপর নৌকার ছাদ এর উপর শুয়ে জ্যোৎস্নায় আলোকিত হাওর দেখতে লাগলাম। জীবনের অন্যতম স্মরণীয় মুহূর্ত হয়ে থাকবে। রাতে আমাদের নৌকা টেকেরঘাট এই বাঁধা ছিল। ওখানেই রাতে আমরা ছিলাম। নিরাপত্তা নিয়ে কোন ভয় নাই ওখানে। পরদিন খুব ভোরে উঠে পায়ে হেঁটে গেলাম লাকমাছড়া ঝর্ণায়। ওখানে ঘুরে এসে নৌকায় এসে আমরা তাহিরপুর ফিরে যাওয়ার জন্য রওনা দিলাম। দেড় ঘন্টা পর তাহিরপুর আসলাম। এরপর আগের মত লেগুনা করে সুনামগঞ্জ শহরে ফিরে আসলাম। এখান থেকে বাস এ ফিরে যেতে পারেন ঢাকা। (সকালে বাস ছাড়ে কিনা সিউর না, কারণ আমরা সিলেট গেসিলাম ওখান থেকে, না হলে সিলেট গিয়ে ওখান থেকে ঢাকার বাস এ উঠতে পারবেন)।
* আমাদের মত গ্রুপ হলে যাতায়াত, খাওয়া, ১ দিন ১ রাত নৌকা ভাড়া সব মিলিয়ে পার হেড ১৮০০- ২০০০ এর মধ্যে হয়ে যাবে। আপনারা চাইলে ২ রাতের জন্য নৌকা ভাড়া করতে পারেন, সেক্ষেত্রে নৌকা ভাড়া দ্বিগুণ লাগবে আর কি। টাংগুয়ার হাওর মিস করবেন না, এটা আপনার জীবনের অনেক স্মৃতিময় ভ্রমণ হয়ে থাকবে নিঃসন্দেহে। আর সম্ভব হলে জ্যোৎস্নার সময়ে যাবেন। চাঁদের আলোয় হাওর অপার্থিব সুন্দর।

Post Copied From:Tanjimul Alam‎>Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com