জাফলং সম্পর্কিত পোস্ট

জাফলং এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য নতুন করে বর্ণনা করার আর প্রয়োজন মনে হয় নেই। সবাই কম বেশী এর সম্পর্কে জানেন।
প্রকৃতির দান এই জাফলং কন্যা। পাহাড় মেঘ ও নদীর অপূর্ব মিলনে সৃষ্টিকর্তার এক উপহার।
এখন আসি
কিভাবে যাবেনঃ
সিলেট টু ঢাকা ২৩৬ কিলোমিটার।
সিলেট টু জাফলং ৬০ কিলোমিটার।
ঢাকা থেকে সিলেটগামী যেকোন বাসে উঠে পড়তে পারেন। তবে ভালো ননএসি বাসগুলোর মধ্যে ইউনিক এনা হানিফ শ্যামলীর ভাড়া ৪৭০ টাকা
এছাড়া মামুন, আলমোবারাকা পরিবহনের ভাড়া ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা।
তাছাড়া জাফলং এ মামুন পরিবহনের আহমেদ নামে একটা বাস আছে।
এটা রাতে ১০ ও ১১ টার দিকে দুই টা বাস ঢাকা সায়দাবাদ থেকে ছেড়ে আসে। ১১ টার বাসের সার্ভিস মোটামুটি ভালো। অন্যটা ভালো না। এটা আপনাকে সকাল ৬/৭ টার দিকে জাফলং নামিয়ে দিবে।
অন্যদিকে,
সিলেট কদম তলী বাস টার্মিনালে আসার পর অন্য বাসগুলো যেখানে আপনাকে নামিয়ে দিবে সেখান থেকে এনার কাউন্টারের ঠিক বিপরীত পাশেই
জাফলং এর বাস পাবেন।
ভাড়া ৬৫ টাকা। প্রতি ১৫ মিনিট পর পর বাস ছাড়ে।
রিসেন্টলি গেইটলক সার্ভিস চালু হয়েছে ভাড়া ১৩০ টাকা। ভাড়া বেশী নিলেও কম অর্ধেক সময় বাচিয়ে দেবে।
এছাড়াও নগরীর সোবহানী ঘাট নামক জায়গা থেকেও বাস পাবেন।
এছাড়াও সিএনজি,মাইক্রো, বা ক্যারীক্যাব পাবেন।
সি এন জি ১৮০০ থেকে ২০০০
মাইক্রো ৩০০০ থেকে ৫০০০
ক্যারিক্যাব ২০০০ থেকে ২৫০০ দিলে সারাদিন
নিয়ে ঘুরতে পারবেন।
ক্যারিক্যাব ও মাইক্রো ভাড়া পাবেন ওসমানী শিশু পার্কের সামনে থেকে।
এতে আপনাকে কদম তলী হতে বন্দরবাজার আসতে হবে অথবা ঢাকার বাস যখন (হুমায়ুন চত্তর) বলে ডাকবে তখন নেমে ঠিক বিপরীত পাসে সিএনজি পাবেন। ভাড়া ১০ টাকা। বলতে হবে শিশু পার্ক যাবো।

জাফলং এর স্পটগুলোঃ
জাফলং যাওয়ার পথে রাতারগুল সোয়াম ফরেস্ট,লালাখাল,জৈন্তারাজ্যের কিছু ধ্বংসাবশেষ দেখতে পারবেন।
শ্রীপুর চা বাগানে নামতে ভুলবেন না।
আরো পাবেন ডিবির হাওর শাপলার বিল।
ও হ্যা হরিপুর ৭নং কুপ দেখতে ভুলবেন না।
৭ নং কুপে বিকেলের দিকে গেলে ভালো।
আগুনের পাহাড় দেখতে পারবেন।
পানিতে আগুনের ঝলকও আপনাকে মুগ্ধ করবে।

জাফলং জিরো পয়েন্টে যাওয়ার রাস্তা দুটি।
মামারবাজার হয়ে অথবা গুচ্ছগ্রাম বিডিয়ার ক্যাম্পের রাস্তা হয়ে।
বিডিয়ার ক্যাম্পের দিকে যাওয়াটা বেশী সুবিধা জনক।
নৌকার ভাড়া ২০/৩০ টাকাও ওপারে পৌছে যেতে পারবেন।
কিন্তু আসার সময় মামার বাজার হয়ে আসতে হবে।নতুবা গাড়িতে সিট পাবেন না।

জাফলং ভ্রমনে সবচেয়ে সুবিধা হলো মাইক্রো বা ক্যারি ক্যাব(২০০০-৩০০০টাকা) নিয়ে ঘুরা। এতে করে যেটা বাসে গেলে মিস করবেন সেটা নেমে দেখতে পারবন।
ক্যারিক্যাবের ড্রাইভারদের বললেই নিয়ে যাবে রাতারগুল,লালাখাল,শ্রীপুর, হরিপুর।

রাতারগুল যেতে কোন লোকাল সার্ভিস নেই।
আপনাকে রিজার্ভ গাড়িতে যেতে হবে
রাতারগুল নৌকা ভাড়া ১২০০/১৫০০।
তবে যত কমাতে পারেন।
সিলেট শহর থেকে সিএনজি ভাড়া ১০০০ টাকার আসে পাশে।

লালাখাল নৌকা ভাড়া ৭০০ ঘন্টায়।
লালাখালে ভ্রমনের সবচেয়ে ভালো সময় শীতকালে মানে এখনই। সারি নদীর স্বচ্ছ নীলাভ পানি এর মুল আকর্ষন। তবে নদীর গতি পথের কারনে অনেকটা বিপদজনক।
পানিতে নামার আগে মাথে দড়ি নেয়া ভালো।
কারন যেকোন সময় পানির ঘূর্ণিতে পরে তলিয়ে যেতে পারেন।

শাপলার বিলঃ শাপলার বিলে যেতে আপনাকে নামতে হবে জৈন্তাপুর।
জৈন্তাপর থেকে ডিবির হাওরে যেতে আপনাকে অটোরিকশা ভাড়া করতে হবে।
তারপর ওখানেই নৌকা পাবেন।
শাপলার বিলে সকালে যাওয়াই ভালো। নয়তো ফুটন্ত শাপলা মিস হয়ে যেতে পারে।

থাকার ব্যবস্থাঃ জাফলং এ ভালো মানের কোন হোটেল নাই। তবে যা আছে তার মধ্যে জৈন্তাহিল রিসোর্ট মোটামুটি ভালো।
আরো কিছু নতুন হোটেল হয়েছে তাদের সার্বিস সম্পর্কে আমার জানা নেই।
[ ভুল ত্রুটি হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টি দেখবেন।আগুনের পাহাড়,শ্রীপুর লেক,শ্রীপুর চা বাগানের ছবি নিচে কমেন্ট বক্সে দেয়া হলো।

Post Copid From:RM Masum AhmedTravelers of Bangladesh (ToB)

Share:

1 Comment

  • IMAMUL

    সুই সুন্দর আমি গিয়েছিলাম ঐ খানে

    Reply

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com