নেত্রকোনা জেলার সুসং দূর্গাপুর উপজেলার ট্যুরিস্ট স্পট

অনেক দিনের ইচ্ছা ছিলো নেত্রকোনা জেলার সুসং দূর্গাপুর উপজেলার ট্যুরিস্ট স্পট গুলো ঘুরবো সেই লক্ষ্যে ২০-১০-২০১৮ কিশোরগঞ্জ হতে যাওয়া। কিন্তু মাঝ পথে বাইক এক্সিডেন্ট এর কবলে পড়ে আর যাওয়া হলো না ফিরে আসতে বাধ্য হলাম মাঝ পথ থেকেই। কিন্তু লক্ষ্য অটুট যেভাবে হোক যাবোই, সেই উদ্দেশ্যে পূর্ণ করার জন্য ২৩-১২-২০১৮ তে আবারো যাত্রা কুফা কাটানোর উদ্দেশ্যে

বেশ কিছু আকর্ষণীয় কিছু পর্যটন স্পট আছে। ঘুরে আসতে পারেন। যা হার মানাবে অন্যান্য স্পট গুলো কেউ 👍
যা যা দেখতে পারবেন ৳
 চিনা মাটির পাহা
লাল পাহাড়
ক্ষুদ্রানুগোষ্টি কালচারাল একাডেমী
সীমান্ত বিজিবি ক্যাম্প
গারো পাহাড়
গারো জমিদার বাড়ি
২৩-১২-২০১৮
সকালে ৯ টার ট্রেনে কিশোরগঞ্জ ষ্টেশন থেকে লোকাল ট্রেনে জারিয়া উদ্দেশ্যে যাত্রা। জারিয়ায় পৌছাতে বেলা ১;১০ মিনিট। তারপর মাহিন্দ্রা করে সুসং দূর্গাপুর বাজার৷ ভাড়া নিবে ৫০-৬০ টা। রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ আমার মতে বাংলাদেশের সবচেয়ে খারাপ রাস্তা।। চাইলে বাইক যোগে যেতে পারেন ৮০/১০০ টাকা নিবে আমি বলবো বাইকে_না_যাওয়ায়_উত্তম।
দুপুরের নাস্তা সারতে সারতে ঘড়ির কাটায় তিনটা। তাই বিকেলটা উপভোগ করার জন্য সমেস্বরী নদী পার হয়ে (নৌকা দিয়ে) শিবগঞ্জ বাজার সেখান থেকে রিজার্ভ অটো করে বিজয়পুর সিমান্তে ঘুরাঘুরি। খুবই সুন্দর জায়গা যথেষ্ট উপভোগ করার মত। সন্ধায় সুসং দূর্গাপুর বাজারে এসে হোটেল ভাড়া নিলাম ৫ জনের একরুম।। শীতের সময় তাই কোনো সমস্যা হলো না।। সকালে ৭ টায় নাস্তা করে আবার অটো রিজার্ভ করে সব স্পট ঘুরিয়ে আনতে বললাম। মুটামুটি ভালো স্পট গুলো ঘুরিয়ে আনলো চিনামাটির পাহাড়, গারো পাহাড়, সাদা পাহাড়, নীল পানি সব দেখে অটো নামিয়ে দিলো বিরিশিরি বাস ষ্ট্যান্ডে। সবাই ক্লান্ত তাই আর কালচারাল একাডেমী ঘুরে দেখা হয় নি। সন্ধার ট্রেনে করে জারিয়ে হয়তে কিশোরগঞ্জ আসলাম।

ঢাকা_থেকে যেভাবে যাবেন:

আমি মনে করি ট্রেনে যাওয়ায় উত্তম
ঢাকা থেকে ট্রেনে সরাসরি ময়মনসিংহ সেখানে থেকে লোকাল ট্রেন ছাড়ে (সকাল ৬,৯,১১,{???}) দিয়ে জারিয়া ষ্টেশন, সেখান থেকে বাইক /সিএনজি/মাহিন্দ্রা করে সুসং দূর্গাপুর বাজার।।। খাবারের জন্য ভালো হোটেল আছে , হোটেল দুলাল৷ হোটেল শান্ত তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য। খাবারের মান খুব ভালো।
থাকার হোটেল আছে অনেক গুলো Ywmc, ডাকবাংলো মান খুব ভালো । হোটেল জবা তে না থাকায় উত্তম faciliti তেমন ভালো না।

খরচের বিবরন:

টোটাল(৫জন)ব্যাকেটে জন প্রতি
কিশোরগঞ্জ টু জারিয়া ০০ টাকা
জারিয়া টু সুসং দূর্গাপুর বাজার ২০০৳ (৪০৳)
নদীপারাপার (আপডাউন)৫০৳ (১০ ৳)
অটো ভাড়া ১ম দিন, ৩৫০ টাকা ১ টা স্পট ৷ (৭০৳)
হোটেল ভাড়া(হোটেল জবা) ৫০০৳ (১০০৳)
২য় দিন অটো ভাড়া ৩ টা স্পট ৭০০৳ (১৪০)
৪ বেলা খাবার /নাস্তা জন প্রতি ২০০ টাকা
দুর্গাপুর টু জারিয়া ২০০ ৳ (৪০)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com