প্যারস্যুট থেকে দেখা সমুদ্র ও পাহাড়.

আগের রাত ৮ টায় বগুড়া থেকে রওনা দেই, গন্তব্য কক্সবাজার।
সঙ্গত কারনেই সেদিন রাতে ও পরদিন সকালে ভারি কিছুই খাওয়া হয়নি।
প্রায় ১৮ ঘন্টার জার্নি শেষ করে কক্সবাজারের হোটেলে চেক ইন করি দুপুর ২ টায়!
কোনভাবে ফ্রেশ হয়ে, নাখে-মুখে লাঞ্চ সেরে এক ছুটে চলে গেলাম দরিয়ানগর।
উদ্দেশ্য ‘প্যারাসেইলিং’
একজনকে প্যারাস্যুটের সাথে ঝুলিয়ে, সমুদ্রে চলন্ত স্পিড বোটের সাথে দড়ি লাগিয়ে প্রায় মিনিট ৫-৭ পর্যন্ত আকাশে উড়ানোর নামই প্যরাসেইলিং।

বেসরকারি এক প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে কক্সবাজারের কলাতলি-হিমছড়ি সড়কের দরিয়ানগরে তাদের প্যারাসেইলিং এর বন্দোবস্ত আছে, শুনেছি হিমছড়ি বিচেও নাকি এটা করা যায়। এখন পর্যন্ত শতভাগ নিরাপদ।

যাওয়া মাত্রই সিরিয়াল পেয়ে গেলাম।
‘আমার মৃত্যু বা অন্য কোন দূর্ঘটনার জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না’
এই মর্মের প্রত্যয়ন পত্রে নাম-দস্তখত করা মাত্রই,
কয়েকজন কর্মি আমার গায়ে লাইফ জ্যাকেট চাপিয়ে দিলো,
আরো দুইজন মিলে প্যারাস্যুটের ক্যারাবাইনার হুকড করে দিলো।
বুকে তখন শঙ্কা বাজছে, অজানা আতঙ্কের ডঙ্কা বাজছে!
যদিও আমার অ্যাক্রোফোবিয়া (উচ্চতাভীতি) আছে,
তবুও এডভেঞ্চারের আশায় উড়াল দেবার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত হচ্ছি।
কর্মিরা সব বুঝিয়ে দিলো, তেমন কিছুই না;
স্টার্টিং এর সময় দ্রুতবেগে হাঁটতে বা দৌড়াতে হবে,
আর ল্যান্ডিং এর সিগন্যাল দিলে লাল ফিতা বাঁধা রশি টেনে ধরতে হবে,
ব্যস! এইটুকুন!

স্পিড বোট চলতে শুরু করলো, রশিতে টান পড়লো,
এক পর্যায়ে আবিষ্কার করলাম স্বয়ং আমি আকাশে উড়ছি, আলহামদুলিল্লাহ!
পানিতে পড়ে গেলেও ভয় পাবার কিছু নেই,
গায়ে লাইফ জ্যাকেট, আর নিচে রেস্কিউ বোট, তাই কোন চিন্তা নেই।
হাতের মোবাইলটা রেখেছি ভিডিও করার জন্য,
বিশেষ ব্যবস্থা ছিলো, পড়ে যাবার এবং পড়ে গেলে ভিজে নষ্ট হবার ভয় ছিলোনা।
প্রচন্ড বাতাসে দম নিতে কষ্ট হচ্ছিলো,
প্রবল কুয়াশায় চারিপাশের দৃশ্য ভালোভাবে উপভোগ করা যাচ্ছিলো না,
শাঁ-শাঁ করে বয়ে চলা বাতাস কান স্তব্ধ করে দিচ্ছিলো,
কথা সত্য, নিচে তাকালেই মাথা ঘুরছিলো, তবুও; এটাই উপভোগ্য!

যাই হোক, প্রায় ১০ মিনিট উড়ু খাওয়ার পরে বাঁশির আওয়াজ পাওয়া মাত্রই নির্দিষ্ট রশি টান দিলাম, মিনিটের মধ্যেই বিচের মধ্যে সফট ল্যান্ডিং…
ইচ্ছে হলো পূরন, জীবন হলো সুন্দর!

প্যারাসেইলিং ফি ১৫০০/- (জাস্ট ফান, শুধু উড়াবে),
২০০০/- (এক্সট্রা ফান, পানিতে পা ছোঁয়াবে, বেশিক্ষন উড়াবে)
কক্সাবাজারের কলাতলি মোড় থেকে লোকাল অটোতে যাওয়া যায়,
জনপ্রতি ভাড়া ১৫/২০ টাকা।
আগে থেকে ফোন করে গেলে ভালো,
এক্টিভিটিজ চালু কি না সেটা জানা যাবে,
সিরিয়ালও রাখা যাবে। যোগাযোগঃ 01783-598892

Post Copied From:

Jubair Abdullah‎> Travelers of Bangladesh (ToB)
Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com