ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, কলকাতা

কলকাতার দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল। প্রায় 100 বছর আগে নির্মাণ করা মার্বেল পাথরের এই বিল্ডিংটি প্রতিবছর লাখো পর্যটক এর দৃষ্টি আকর্ষণ করে। কলকাতায় গিয়ে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল যাবেন না এটা কখনোই সম্ভব নয়। পাশাপাশি ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর সামনেই ময়দান আর পাশেই সেন্ট পলস ক্যাথলিক চার্চ দেখে নিতে পারেন।

ঢাকা থেকে কলকাতা বাসে ট্রেনে অথবা বাই এয়ার যেতে পারেন। আমরা একেবারে লোকাল ট্রেনে করে খুলনা থেকে বেনাপোল হয়ে কলকাতা গিয়েছিলাম। খুলনা থেকে বেনাপোল ট্রেন ভাড়া 45 টাকা, বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন থেকে বর্ডার অটো ভাড়া 10 টাকা, ওপারে পেট্রপোল থেকে বনগাঁ রেলওয়ে স্টেশন অটো ভাড়া 30 রুপি, আর বনগাঁ থেকে শিয়ালদা রেলওয়ে স্টেশন ট্রেন ভাড়া 20 রুপী, শিয়ালদা থেকে নিউমার্কেট এরিয়া ট্যাক্সি ভাড়া 120 রুপী।

প্রথম দিন রাত হোটেলে রেস্ট নিয়ে পরের দিন সকালে আমরা বাসে করে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পার্ক স্ট্রীট বাসস্টপ থেকে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল বাস স্টপ পর্যন্ত যেতে সময় লাগে 5 থেকে 7 মিনিট আর ভাড়া নিবে সাত রুপি। বাস থেকে নেমে সোজা ডান দিকে হেঁটে গেলেই ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর গেট।

ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে টিকিটের মূল্য ফরেনারদের জন্য 200 টাকা, সার্কভুক্ত দেশের সিটিজেনদের জন্য 100 টাকা আর ইন্ডিয়ান দের জন্য 30 টাকা। আমরা
ইন্ডিয়ান হিসেবে 30 রুপি দিয়ে টিকিট করে ঢুকে পড়লাম ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর ভিতর। তার আগে ময়দান এর সামনে ঘোড়ায় উঠে নিতে পারেন।

ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল বিশাল এলাকা নিয়ে বিস্তৃত। মেমোরিয়াল কে ঘিরে সবুজ শ্যামল বাগান আপনাদের নজর কাড়বে। পার্টি খুবই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন এবং অনেক গোছানো। পার্কের যেকোনো প্রান্ত থেকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকে সাদা মার্বেল পাথরের অসাধারণ বিল্ডিংটি। দুই তলা বিশিষ্ট এই বিল্ডিং দেখলে সত্যিই অবাক লাগে যে এত সুন্দর একটা বিল্ডিং কি করে হয়। বিল্ডিং এর ভিতরে প্রবেশ করলেই দেখতে পাবেন ব্রিটিশ শাসনামলের নানান ঐতিহাসিক নিদর্শন। পাশাপাশি মোঘল এবং নবাবদের ব্যবহৃত অনেক জিনিসপত্র এবং দলিলাদি। প্রায় 2 ঘন্টা ঘুরে ফিরে আমরা বিল্ডিংয়ের এক্সিট পয়েন্ট থেকে বের হয়ে সোজা বাম দিকে চলে যাই।

মেইন রাস্তায় বের হয়ে রাস্তার অপজিটে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে সেন্ট পলস্ ক্যাথলিক চার্চ। অসাধারণ একটি চার্চ অবশ্যই আপনাদের ভালো লাগবে। চার্চের মেইন গেটের ডান দিকে আদিত্য বিড়লা অডিটোরিয়াম দেখতে পাবেন। এটা অনেকটা আমাদের দেশের নভোথিয়েটার এর মত। গ্রহ নক্ষত্র ভালো লাগলে এই অডিটোরিয়াম তাও একটু ঘুরে দেখতে পারেন।

এভাবেই সব কিছু ঘুরে ফিরে দেখতে প্রায় বিকেল হয়ে যায়। আমরা ফিরে যাই আমাদের হোটেলে এবং সন্ধ্যায় নিউমার্কেট এরিয়ায় ঘুরে বেড়ায়।

ঘুরে বেড়ানোর সময় পরিবেশের খেয়াল রাখবেন। আপনি প্রকৃতির যত্ন নিলে প্রকৃতি আপনার যত্ন নিবে। যেখানে সেখানে ময়লা ফেলবেন না, আর পরিবেশের ক্ষতি হয় এমন কোন কাজ করবেন না। হ্যাপি ট্রাভেলিং।

Source:  Ibrahim K Tuhin‎ <Travel Freak Bangladesh (TFB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com