মাউন্টেন ভ্রমনের কিছু তথ্য

অনেকেই পাহাড়ে ঘুরতে যান – আর সুন্দর সুন্দর পাহাড় দেখে অভিভুত হন , কিন্তু ঠিক মত চিনতে পারেন না – কোনটা কোন পাহাড় । আবার অনেকে আশা করে কেওক্রাডং যান দুমলং পাহাড়ের ছবি উঠাবেন , যায়গায় গিয়ে আর চিনতে পারেন না – কোনটা দুম লং । আজকে পাহাড় চিনার সহজ কিছু টেকনিক নিয়ে আলাপ করব ।

১। প্রাথমিক ভাবে পাহাড় আইডেনটিফিকেশনের সহজতম টুলস বা হাতিয়ার গুগুল আর্থ ( গুগুল ম্যাপেও কাজ চলবে ) । আপনি যেই পাহাড়ে যাবেন ( মনে করেন কেওক্রাডং ) সেটা গুগুল আর্থ এ চিন্হিত করে ফেলেন । তারপর আসে পাশে যেই সব পাহাড়ের ছবি চান সেগুলো-ও গুগুল আর্থ এ চিন্হিত করে ফেলুন । সব বিখ্যাত পাহাড়ের নাম – লোকেশন ই গুগুল আর্থে পাবেন চিন্হিত অবস্হায় । সেটা নিজের মত করে একটা মার্ক ও করে রাখতে পারেন । এরপর কাজ হল গুগুল আর্থ এ একটা লাইন টানা – যেটা প্রোপারটিতে দেখাবে কত ডিগ্রী অভিমুখে আছে রেখাটি । এই ডিগ্রীটাই আসল সুত্র ।

এখন একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে গুগুল আর্থে যেই দাগ টানা হয় – সেটার কৌনিক অবস্হান ‘এজিমুথ’ এ প্রকাশ করা হয় । এই এজিমুথ হচ্ছে কোন একটা কৌনিক অবস্হানকে একটা সংখা দিয়ে প্রকাশ করার উপায় । উত্তর দিক কে শুন্য ধরে ঘড়ির কাটার দিকে ৩৬০ ডিগ্রী পর্যন্ট এর পরিমাপ হয়ে থাকে । যেমন সোজ উত্তরের এজিমুথ ০ ডিগ্রী , সোজা পূব দিক ৯০ ডিগ্রী , সোজা দক্ষিণ দিক ১৮০ ডিগ্রী , ঠিক উত্তর পূব দিক মানে ৪৫ ডিগ্রী । এখন যদি বলা হয় কোন পাহাড়ের এজিমুথ ২৭০ ডিগ্রী তাহলে কি বুঝবেন ? বুঝা যাবে এটা ঠিক পশ্চিম দিকে । আবার যদি বলা হয় কঅন পাহারের এজিমুথ কেওক্রাডং থেকে ২০০ ডিগ্রীতে , তাহলে কি বুঝা যাবে ? যেহেতু ১৮০ ডিগ্রী মানে দক্ষিণ দিক , তাই ২০০ ডিগ্রী মানে দক্ষিণ থেকে আর ডানে ২০ ডিগ্রী ।

২। দ্বিতীয় পদ্ধতি হচ্ছে আপনি একটা পাহাড়কে চিনেন , কিন্তু তার পাশের একটা পাহাড়কে চিনতে পারছেন না । সেটা জানার জন্য আপনি জায়গায় দাড়িয়ে কৌনিক দুরত্ব মেপে নিতে পারেন । এলবামে একটা ছবি আছে হাতের আংগুল দিয়ে কৌনিক দুরত্ব মাপার। আপনি দুমলং চিনেন আর তিন মুখ পিলার দুম লং থেকে মনে করেন ৩০ ডিগ্রী দূরে , ডান পাশে । এখন হাত দিয়ে ৩০ ডিগ্রী মেপে আপনি খুজে পেতে পারেন তিন মুখ পিলারের পাহাড় । আর কৌনিন দুরত্ব কিভাবে পাবেন ? সেটা পাবেন দুই পাহাড়ের এজিমুথ বিয়োগ করে । মানে এক পাহাড়ের আজিমুথ ৬০ ডিগ্রী , আরেক পাহাড়ের ৮৫ ডিগ্রী । তাহলে এই দুই পাহাড়ের কৌনিক দুরত্ব ২৫ ডিগ্রী ।

Some azimuth and distance from Keokradong :

Sakahafong : Azimuth 151 Degree , Distance ( 20+ )
Jogi : Azimuth 162 Degree , Distance ( 32 km)
Jowtlong : Azimuth 164 Degree , Dstance ( 34 km)
Kopital : Azimuth 169 Degree , Distance 5.4 km
Tazingdong : Azimuth 173 Degree, Distance 15 km
Cirstong : Azimuth 187 Degree, Dstance 32 km
Rungrang : Azimuth 193 DEgree, Distance 32 –
Dim Pahar : Azimuth 205 Degree, Distance 24 km.
Chokki nala : 223 DEg , 21 km

আপানর পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন রাখুন , বিশেষ ভাবে পাহাড়ে গেলে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলবেন না , বন্য প্রাণীর অসুবিধা করবেন না ।

source: Ratul Bd

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com