ম্যালেরিয়ার প্রতিষেধক

যখনই আপনি ম্যালেরিয়া প্রবন এলাকায় যাবেন তার একদিন আগে থেকে Doxicyclin শুরু করবেন এবং যেদিন ফিরে আসবেন সেইদিন থেকে ২৮ দিন পর্যন্ত প্রতিদিন ১ টা করে খেতে হবে। এই ভ্রমন পরবর্তী ২৮ দিনের মধ্যে যদি আবার ও কোনো ম্যালেরিয়া প্রবন এলাকায় যান তখন আবার একই নিয়মেই ফিরে আসার পর থেকে ২৮ দিন পর্যন্ত ওষুধ চলবে। ধরুন আপনি জুলাই মাসের ১০ তারিখে ম্যালেরিয়া প্রবন এলাকায় যাবেন তাহলে ৯ ই জুলাই থেকে আপনি Doxicyclin শুরু করলেন ৪ দিন ভ্রমনে থাকা কালীন ওষুধ খেলেন এরপর ফিরে আসলেন তখন ২৮ দিনের ওষুধ চলতে থাকলো। এই ২৮ দিনের ওষুধ চলা কালীন সময়ের মধ্যেই অর্থাত ২৮ দিনের ১ দিনও বাকি থাকতে যদি আপনি আবার যান তাহলে ভ্রমন সময়ে ওষুধ চলতেই থাকবে এবং ফিরে আসার পরে ২৮ দিন পর্যন্ত চলবে। এখন আপনি নিজেই হিসাবটা করতে পারবেন। আপনার ক্ষেত্রে ৯ তারিখে শুরু করে ১৩ তারিখ পর্যন্ত ভ্রমনে থাকার সময়ের ৪ দিন এর পর ১২ দিন (২৫ তারিখ পর্যন্ত) মেইনটেইন ডোজ চলাকালীন সময়ে আবার ৩ দিনের (২৮ তারিখ পর্যন্ত ) ওষুধ চলল দ্বিতীয় বার ফিরে আসার পর মেইনটেইন ডোজ ২৮ দিন (২৬ সে আগস্ট পর্যন্ত ওষুধ একটানা ওষুধ চলবে)। ****হিসাবের সুবিধার্থে ৩০ দিনে মাস ধরা হয়েছেঅব্লোকুইন এর ক্ষেত্রেও হিসেবটা মোটামোটি একই শুধু একদিন আগের বদলে ১ সপ্তাহ আগে শুরু হবে এবং প্রতি দিনের বদলে সপ্তাহে ১ টা করে চলবে এবং চার সপ্তাহে ৪ টি ট্যাবলেট খেতে হবে ফিরে আসার পরে।

প্রসঙ্গ ক্রমে বলে রাখি যদিও Chloroquine (অব্লোকুইন) ম্যালেরিয়ার স্পেসিফিক ওষুধ তার পরেও এডভেঞ্চার টুরিস্ট দের ম্যালেরিয়ার জন্য আমি Doxicycline কেই এগিয়ে রাখি।এর বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে যেমন ১। অধিকাংস সময়েই আমরা হুট করে ২/১ দিনের নোটিশে টুর প্লান করে থাকি ফলে ১ সপ্তাহ আগের ক্লোরোকুইন খাওয়া পসিবল হয় না কিন্তু Doxicycline আগের রাত্রেই শুরু করে একই ফল পাওয়া যায়।২। Doxicycline পারা মহল্যার প্রায় সকল ওষুধের দোকানেই পাওয়া যায় যা Chloroquine এর ক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে।যদি আপনার কাছে ফুল ডোজ না থাকে কিংবা হারিয়ে যায় ৩। এডভেঞ্চার টুরে ম্যালেরিয়া ছাড়াও অন্য পোকা মাকড়ের কামর কিংবা ছোট খাটো কাটা ছেড়া থেকেও ইন্ফেকসনের ঝুকি থাকে যা Doxicycline কভারেজে খাকার কারণে হ্রাস হয়। Chloroquine এর ক্ষেত্রে এই বাড়তি সুবিধা নাই। ৪। সপ্তাহে ১ টা ওষুধ খেতে হয় বলে Chloroquine এর ডোজ ভুলে যাবার সম্ভাবনা বেশি থাকে। ৫। Chloroquine এর তুলনায় Doxicycline দামেও বেশ কম। ৬। Doxicycline দামে কম (একই সাথে লাভও কম) হবার কারণে ফার্মাসিতে বিক্রেতাদের কাছে কম জনপ্রিয়। ফলে যত্রতত্র ব্যবহার না হবার কারণে রেজিস্টান্স হবার সম্ভাবনা অনেক কম………..

থানচি রুমা সহ বান্দরবনের অনেক স্থানে ম্যালেরিয়ার প্রকোপ দেখা দিছে…আপনারা যারা বান্দরবন যাবেন অবশ্যই অবশ্যই ম্যালেরিয়া প্রফাইলেক্সিস নিয়ে যাবেন…ম্যালেরিয়ার ৪ টা স্পিছিস এর মধ্যে খারাপ ‘প্লাজমডিয়াম ফেলছিপেরাম’ বান্দরবনের জন্য এন্ডেমিক এবং জটিলতা অনেক অনেক বেশী…ম্যালেরিয়া প্রফাইলেক্সিস: Tab. Doxycap 100mg যেদিন ভ্রমন শুরু করবেন সেদিন থেকে প্রতিদিন রাতে ১ টি করে। ভ্রমন শেষ হওয়ার ৭ দিন পর পর্যন্ত চলবে।সবাই সুস্থ থাকুন…হ্যাপি ট্রাভেলিং।

ম্যালেরিয়া প্রফাইলেক্সিস এর জন্য আমরা কয়েকধরনের ড্রাগ নিই… যেমন (১) Mefloquine যা larium নামে পাওয়া যায়…প্রতি সপ্তাহে ১ টি খাইতে হয় কিন্তু ভ্রমনের ১ সপ্তাহ আগে থেকে শুরু করতে হয় এবং ভ্রমন শেষ হওয়ার ৪ সপ্তাহ পর পর্যন্ত খাইতে হয়…যা অনেকেই নিয়ম মানে না,Drug Interaction,Side effect তুলনামুলক ভাবে বেশি। আর (২)Malarone (Atovaquone 250/ Proguanil 100 অনেক দামি ড্রাগ আমাদের দেশে পাওয়া যায় না। আর (৩) Doxycycline বেশি ব্যাবহার করা হয়…এখনও পর্যন্ত রেসিসটেনট হয়নি…তবে আগামিতে হইতেও পারে…এইটাও নিয়ম মতে ভ্রমন শেষ হওয়ার ৪ সপ্তাহ পর পর্যন্ত খাইতে হয়…তবে আমার প্রফেসর এর মতে বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে কমপক্ষে ১ সপ্তাহ খাইলে চলে, সহজলভ্য,দামেও কম।

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com