শিলং ভ্রমণ এবং সাধারণ প্রশ্নোত্তর

শুক্রবার দুপুর থেকে রাত থেকে রবিবার রাত (শ্যামলীর শিডিউলের সাথে মিল রেখে তৈরী করার চেষ্টা করলাম):

শুক্রবার: শিলং পৈাছতে যদি দুপুর গড়িয়ে যায় সেদিন আর কোথাও না যেয়ে বিকাল বেলাটা শিলং শহরে ঘোরাঘুরি করে কাটাতে পারেন। হোটেল খুজে পেতে কিছু সময় লাগবে। পুলিশ বাজারের আশেপাশে অনেকগুলি হোটেল আছে যে গুলোতে থাকতে পারেন। বাবা লজ, ব্লু মাউন্টেইন ইত্যাদী হোটেল চেক করে দেখুন। বিকেলে উমিয়াম লেকটাও ঘুরে আসতে পারেন। অথবা ডন ভসকো মিউজিয়াম, ওয়ার্ড লেক দেখে সময় কাটান। সন্ধ্যাটা রাখুন কেনা কাটার জন্য। শনিবার: চেরাপুঞ্জি বা সোহরা হচ্ছে শিলংয়ের মূল আকর্ষণ। যদি সংখ্যায় বেশী থাকেন নিজেরা একটা গাড়ী ভাড়া করে চলে যেতে পারেন। আর না হলে মেঘালয়ের ট্যুরিজমের বাসে করে যান। অনেকগুলা স্পটই একদিনে কভার করা যাবে। যেমন, সেভেন সিস্টারস ফলস, মাউসামি কেইভ, নুকায়কালী ফলস, মাউন্টেইন ভিউ ইত্যাদী।

রবিবার: যে গুলো বাদ পড়েছে যেমন: এলিফ্যান্ট ফলস এব শিলং পিক ঘুরে আসুন। দুটোই শহরের কাছাকাছি। লিভিং রুটের কথা ভুলে যেতে পারেন, ওটা একেবারে ডাউকির কাছে। সোমবারদিন ফিরে আসবেন।

অতিরিক্ত টিপস: ১. শিলংয়ে ডলার ভাংগানো খুব সমস্যা। ব্যাংকিং আওয়ারের মধ্যে আসতে পারলে ব্যাংক থেকে ভাংগান আর না পারলে শ্যামলীর সুপারভাইজারকে বলুন সাহয্য করতে। তাও সম্ভব না হলে পুলিশ বাজারের কাছে একটা কাপড়ের দোকান আছে সেখানে ভাংগাতে পারবেন কিন্তু ঠকাবে। ২. মেঘালয় আসামী ট্যাক্সি ড্রাইভার থেকে দূরে থাকবেন, এরা আপনার সাথে বিভিন্ন ধরণের প্রতারণা করতে পারে। গারো/খাসিয়া ট্যাক্সী ড্রাইভার নিবেন। ৩. সন্ধ্যার সাথে সাথে মোটামুটি লোক চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তবুও মুভি দেখেতে যেতে পারেন। যদিও সিনেমা হলটা খুব ভালো কিছু না। ৪. খাবার সময় মনে রাখবেন রুই মাছ সবচেয়ে সস্তা এবং ইলিশ মাছ সবচেয়ে দামী, ভুলেও বাংলাদেশ থেকে ৬ মাস আগে রপ্তানী করা ইলিশ মাছ খাবেন না। ৫. রবিবার মোটামুটি সব কিছুই বন্ধ থাকে, কখাটা মাথায় রাখবেন। আমার যা কিছু মনে পড়লো লিখলাম, আপনাদের যাদের কাছে নতুন তথ্য আছে যোগ করতে পারেন। হ্যাপি ট্রাভেলিং।

প্রশ্নোত্তরে শিলংভ্রমণ: বিআরটিসি-শ্যামলীর সৈাজন্যে যে ঢাকা থেকে শিলং ভ্রমণ নিয়ে মানুষের প্রবল আগ্রহ দেখে একটা FAQ তৈরী করলাম। দেখেন আপনাদের প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায় কিনা। প্র: শিলং-আসাম যেতে ভিসা লাগে কিনা? উ: জি ভাই লাগে, ভারত আরেকটা দেশ । প্র: ভিসার জন্য কি কাগজপত্র লাগে? উ: ভারতের ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য যা যা লাগে সব (বিস্তারিত ivacbd.com এ যেয়ে একটু কষ্ট করে দেখুন)। প্র: ডলার এনডোর্স করা লাগবো? উ: ১৫০ ডলার (অবশ্যই ব্যাংক থেকে) অথবা ব্যাংকে ১৫,০০০ টাকা সহ ব্যাংক স্টেটমেন্ট অথবা ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ডের ফটোকপি (ক্রেডিট কার্ড পাসপোর্টে এনডোর্স করা থাকতে হবে)।

প্র: ইটোকেন লাগে? উ: না, বড় বাচা বাচলেন। অন্তত ২,০০০ টাকা বাচলো।

প্র: খরচ কত? উ: ৫,১০০ টাকা। এই টাকার মধ্যে রিটার্ন বাস ভাড়া (২,০০০ করে ৪,০০০), ভিসা ফি, ৬০০ টাকা এবং সার্ভিস চার্জ ৫০০ টাকা। এ ছাড়াও ৫০০ টাকা ট্রাভেল ট্যাক্স লাগবে, যা আপনাকে নিজ দ্বায়িত্বে কোন সোনালী ব্যাংকে প্রদান করে যেতে হবে।

প্র: হোটেল, খাওয়া দিবে? উ: না ভাই, আবদার বেশী হয়ে গেল!

প্র: কতদিন লাগে ভিসা প্রসেস করতে? উ: ৫ কর্মদিবস।

প্র: এ ভিসা নিয়ে ভারতের কোথায় কোথায় যাওয়া যাবে? উ: ২৯টা রাজ্যেই যাওয়া যাবে (বিশেষ অনুমতি লাগে এধরণের এলাকা ছাড়া)। তবে ফিরতে হবে ডাউকি দিয়াই, মনে রাইখেন।

প্র: ভারতের পোর্ট অব এন্ট্রি/এক্সিট কি হবে? উ: ডাউকি।

প্র: অন্য পোর্টের জন্য দিবেনা? না দিলে কেন দিবেনা? উ: দিবেনা। কেন দিবেনা এটার ব্যাখ্যা এম্বেসী দিতে পারবে যদি তারা আপনার ফোন ধরে!

প্র: ভিসা কয়দিনের দিবে? উ: ১-৬ মাস (ভারতীয় হাইকমিশনের মর্জি অনুসারে)।

প্র: আমার ভারতীয় ভিসার মেয়াদ আছে, আমি এ সুযোগ নিতে পারবো? উ: জানিনা ভাই ! শ্যামলির সাথে কথা বলেন।

প্র: আমাকে যেতে হবে এম্বেসীতে? উ: না, আপনি বিআরটিসি-শ্যামলী কাউন্টারে (কমলাপুরে) জমা দিবেন।

প্র: থাকা খাওয়া ঘুরা-ঘুরির জন্য কত লাগবে? উ: শিলং মোটামুটি সস্তায় থাকা-খাওয়া যায়। গড়ে প্রতিদিন ১,০০০ রুপি/জন বাজেট করতে পারেন। ২/৩ জন হলে ছোট টেক্সি, ৭/৮ জন হলে টাটা সুমো আরো বেশী হলে মেঘালয় ট্যুরিজমের প্যাকেজে ঘুরতে পারেন। গুয়াহাটিতে থাকার ব্যয় অনেক বেশী ৮০০-২০০০ রুপি লাগবে। সেখানে অধিকাংশ হোটেলেই বাংলাদেশীদের রাখতে চায়না। শিলং থেকে গুয়াহাটি গাড়ী চলে ১৫০ রপি ছিল, যখন আমি গিয়েছিলাম।

প্র: বাস ছাড়ে কোন কোন দিন? উ: ঢাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাতে আর শিলং থেকে সোমবার সকালে ছেড়ে রাত দশটায় ঢাকা পৈাছাবে (আরও জানতে চাইলে সংযুক্ত ছবি দেখে ফোন দেন, ছবিটি টিওবির আগের একটি পোস্ট থেকে নেয়া)

প্র: এ বাস কোন দিয়ে যাবে? উ: তামাবিল হয়ে শিলং। ওইযে জাফলং থেকে ইন্ডিয়ার যে ব্রীজটা দেখেন ওইটা উপর দিয়ে যাবে।

প্র: বাস কি রকম? উ: টাটা এসি বাস। আপনার মার্সিডিজ লাগলে আপনি আপনার মত যান, মানে সিলেট যান, সিলেট থেকে গাড়ী ভাড়া করে তামাবিল যান, ডাউকি বর্ডার পার হয়ে আবার গাড়ী ভাড়া করেন। অথবা অপেক্ষা করেন, নতুন চুক্তি হলে নিজের গাড়ী নিয়া যাইতে পারবেন।

প্র: শিলং কি দেখার আছে?

উ: অনেক কিছু। শিলং পিক, উমিয়াম লেক, এলিফেন্ট ফলস, সেভেন সিস্টার্স ফলস, নু-কায় খালী (নোয়াখালী নহে) ফলস, মাউসামি কেইভ, উমিয়াম লেক ইত্যাদী।

Share:

1 Comment

  • Prince

    apnar post ta amr valo legechhe… kichu info amr jana dorkar jodi help korte paren ar ki. amra 8 (eight)jon jawar plan korchi.guwahati theke cherapunji porjonto. dawuki theke guwahati jabo. stay kore shilong then stay kore cherapunji then stay kore dawki hoye dhaka. ei route gula te koto kore sumo fare lagte pare jodi ektu idea dite parten jodi.

    Reply

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com