সাজেক ভ্যালির ট্যুর সম্পর্কে আলাপন

আমরা সবাই জানি বাংলাদেশ এর দার্জিলিং নামে পরিচিত সাজেক ভ্যালি। এর সৌন্দর্য অসধারন যার বর্ণনা আসলে লিখে পোস্ট এ সম্ভব না। কিছু ছবিতে হয়ত সামান্য বুঝা যাবে। আমরা অনেক সময় ঘুরার জন্য গ্রুপ খুজে পাই না বা নিজের মন খারাপ থাকা অবস্থায় ঘুরতে মন চাইলে পারি না ঘুরতে । আমাদের ধারনা, ট্যুর মানেই গ্রুপ। আসলে ব্যাপার টা এমন না। যদি আপনি নিজে ঘুরতে আনন্দ পান তাহলে নিজে নিজেই ঘুরে আসতে পারেন অনেক জায়গা। কিভাবে অনেক অল্প খরচে সাজেক ঘুরা যায় তা নিয়েই আজকের লিখা।

কোন রকম প্লান ছিলো না ঘুরতে যাওয়ার । হটাত মানশিক অবস্থার অবনতির কারনে ভাবলাম যাই একটু ঘুরে আসি। এটা ভাবা রাত ৮ টায় । ১৫ মিনিটে ঘুছিয়ে বেরিয়ে পরি একা। কারন অনেক ঘুরার অভিজ্ঞতায় জানি খরচ বেশি না করে কিভাবে ঘুরা যায়।

যারা সুধুমাত্র সাজেক ঘুরবেন অন্য কোথাও জাবেন না এবং যাদের বাজেট ২ হাজার টাকা তাদের জন্য আমার এই পোস্ট। তবে হ্যা মনে সাহস থাকলেই কেবল এই ট্যুর এর সিধান্ত নিবেন। বাকিটা বিস্তারিত পরলেই বুঝবেন।

আমি এর আগে ও ২ বার সাজেক,খাগড়াছরি গিয়েছি। যার ফলে আমার এই রোড সম্পর্কে ভালো ধারনা আগে থেকেই ছিল এবং আমার খাগড়াছড়ি ঘুরার কোন ইচ্ছে ছিলো না। সায়দাবাদ থেকে টিকেট নিলাম শান্তি পরিবহন এর ঢাকা টু বাঘাইহাট । বাঘাইহাট থেকে লোকাল জিপ এ করে সরাসরি সাজেক। মনের সাহস বলার কারন হচ্ছে বাঘাইহাট থেকে সাজেক লোকাল জিপে অনেক সময় ৪০/৫০ জন ও যাত্রী যাওয়া আসা করে থাকে। যেখানে আমরা সাধারন টুরিস্ট ৭-১৩ জন যেয়ে থাকি রাউন্ড ট্রিপ।অনেকে ৪০/৫০ জন লোক ভেবেই অজ্ঞান হয়ে যাবে কিন্তু আসলে লোকাল জিপ এর ড্রাইভাররা অনেক বেশি অভিজ্ঞ এই রোডে।কারন তাদের বছরের ৩৬৫ দিন এমন যাত্রী নিয়ে রেগুলার আশা যাওয়া করতে হয় এই রোডে। তবে হ্যা সব সময় যে এত যাত্রী হয় তা ঠিক না যেমন আমি আসার সময় মাত্র ১০/১২ জন নিয়ে পুরো রাস্তা এসেছে। বাঘাইহাট থেকে আরো সামনে মাচালং এর স্থানীয় হাট বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার এই ২ দিন এত বেশি লোক হয় ,যে সে গাড়ি দেখলেই অনেকে হয়ত ভয় পেয়ে যাবেন । আর একটু পর পর ই যাত্রী উঠবে/নামবে সেটা সজ্য করার ক্ষমতা নিয়েই আপনাকে এ যাত্রার সিধান্ত নিতে হবে তবে এর চিত্র ঢাকার তুরাগ থেকে ভালো 😛 । খুব কম সময় নিবে যাত্রী উঠাতে বা নামাতে। বাঘায়হাট থেকে সাজেক যেতে সাধারণত ২ ঘণ্টা সময় লাগে। সাজেক গিয়েই একটা গ্রুপ পেয়ে গেলাম শেয়ার করে থাকলাম ৭ জন ডাবল বেড এর ২ রুমে। রাতে নিজের মত করে পাহাড়ের চুড়ায় লক্ষ তারার অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করে ঘুমিয়ে পরলাম । ভোর ৫ টায় উঠে চলে গেলাম হ্যালিপেড এর আগের পাহাড়ে। সেখান থেকে ভালো ভিউ দেখা যায় । এই সিজনে মেঘ টা খুব ভালো দেখা যায়। কারন গত বছর আমরা এসেছিলাম কিন্তু মেঘ দেখতে পাই নি। আর যারা সলো ট্যুর দিবেন তাঁরা চেষ্টা করবেন টিওবি হেল্প থেকে থাকার ব্যাপারে আগে থেকে পোস্ট দিয়ে টিম ম্যানেজ করে নিতে । আর যদি অল্প টাকা বেশি খরচ করতে পারেন তাহলে টিম দরকার হবে না । সকাল টা কাটিয়ে আবার মনটানার সামনে থেকে লোকাল জিপে করে চলে আসুন বাঘাইহাট (লোকাল জিপ এর সময়সূচী নিচে দেয়া হলো) । শান্তি পরিবহনের শেস বাস ছেরে যায় বিকেল ৫ঃ২০ মিনিটে বাঘাইহাট থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে । এই বাস টি আসে সায়দাবাদ হয়ে রামপুরা হয়ে কুরিল হয়ে গাজীপুর ।

সলো ট্যুর এর খরচাপাতি ঃ
ঢাকা – বাঘাইহাট (খাগড়াছড়ি) ঃ ৬২০ টাকা (শান্তি পরিবহন নন এসি)
বাঘাইহাট (খাগড়াছড়ি)- ঢাকা ঃ ৬২০ টাকা (শান্তি পরিবহন নন এসি)
বাঘাইহাট- সাজেক ঃ ১১০ টাকা (লোকাল জিপ)
সাজেক-বাঘাইহাট ঃ ১১০ টাকা (লোকাল জিপ)
শেয়ারে থাকা ঃ ২০০ টাকা
বাকি ঃ ৩৪০ টাকা খাওয়া
মোট ঃ ২০০০ হাজার

বাঘাইহাট থেকে সাজেক/সাজেক থেকে বাঘাইহাট লোকাল জিপ এর সময়সূচী ঃ
সকাল ৮.৫০, ১১.৩০ দুপুর ১.৩০, ৩.৩০
প্রয়জনবোধে ড্রাইবার এর সাথে আসার সময় সুচি নিয়ে কথা বলে নিন।

জরুরী বার্তা ঃ
আমরা কোন ভাবেই যেখানে সেখানে ময়ালা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করবো না পাহাড়ের। কংলাক পাড়ায় অনেক প্লাস্টিক দেখা যায় যা আসলেই দুঃখজনক । ময়লা ময়লার ঝুরিতে ফেলবো । দরকার হয় ময়লা এক সাথে জমিয়ে ময়লার ঝুরি খুজে বের করে ঝুরিতে ময়লা ফেলবো।

বিঃদ্রঃ এ ট্যুর দিয়ে অনুপ্রেরনা দেয়া হচ্ছে সবাইকে এমন না বিষয় টা। নিজের অভিজ্ঞিতা শেয়ার করা । ট্যুর দিবেন নিজের সিধান্তে । লেখায় বানান ভুল এই টাইপ কমেন্ট না করলে খুসি হবো। ভুল বানানটুকু আশাকরি বুঝে নিবেন।
Source:Robiul Islam Parvez>‎Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com