স্বপ্নের মেরিন ড্রাইভ

স্বপ্নের এই কারনে বললাম যে প্রায় ২৬ বছর লাগলো মেরিন ড্রাইভ সড়কটি করতে ।
বঙ্গোপসাগর এর পাশ দিয়ে কক্সবাজারের কলাতলী সৈকত থেকে টেকনাফ পর্যন্ত বিস্তৃত যা বর্তমানে পৃথিবীর দীর্ঘতম মেরিন ড্রাইভ সড়ক।অনেক কাঠ খড় পুড়িয়ে আজকের মেরিন ড্রাইভ।এই সড়ক টি নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয় ১৯৮৯ সালে। ১৯৯৩ সালে তৎকালীন সরকার ৪৮ কিঃমিঃ দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ প্রকল্প গ্রহণ করেন। ২ কিঃমিঃ নির্মানের পর এর কাজ বন্ধ হয়ে যায় । সাগরের প্রবল স্রোতে বিলীন হয়ে যায় সড়ক টি । পরবর্তিতে ১৯৯৫ সালে এর নির্মাণ কাজ পুনরায় শুরু হয়। তখন এর নির্মান কাজের দায়িত্ব দেয়া হয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে।সাগরের প্রবল স্রোত, অর্থ সংকট ও সরকারের সদ ইচ্ছার অভাবে শুরু হয়েও শেষ হচ্ছিলনা সড়কটির কাজ।মাঝে কয়েক বছর কাজ বন্ধ থেকে পুনরায় ২০০৮ সালে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়।বর্তমান সরকারের আগ্রহ ও সদ ইছার কারনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কঠিন পরিশ্রমে এই প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ ২০১৮ সালে হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৭ সালের ৬ মে এক বছর আগেই শেষ হয়। এটির নির্মান কাজ চলাকালীন ২০১০ সালের ১৪ জুন পাহাড় ধসে নির্মাণ কাজে নিয়োজিত ছয় সেনা সদস্যের মৃত্যু হয়।আমার মতে জীবনে একবার হলেও এই সড়ক টি দেখা দরকার।
বিভিন্ন উপায় আপনি এই সড়কটি ঘুরতে পারেন
পায়ে হেটে, সাইক্লিং করে, প্রাইভেট কারে চরে, চান্দের গাড়ি দিয়ে।
মেরিন ড্রাইভ ঘুরতে হলে আপনাকে বাংলাদেশের যে কোন প্রান্ত থেকে প্রথমে কক্সবাজার তার পর বিভিন্ন উপায় মেরিন ড্রাইভ সড়কটির ঘুরে দেখতে পারেন।
আর স্যালুট জানাই তাদের কে যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের, আজ আমরা স্বপ্নের মেরিন ড্রাইভ এর বাস্তব রুপ দেখছি ।
তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Post Copied From:Ripon Shakh>Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com