অপূর্ব সৌন্দর্য ছোট্ট একটি গ্রাম ঘাঙ্গারিয়া

ভ্যালী অফ ফ্লাওয়ারস এবং শিখদের একটি জনপ্রিয় তীর্থস্থান হেমকুন্ড যাওয়ার বেসক্যাম্প হিসেবে পরিচিত ছোট্ট একটি গ্রাম ঘাঙ্গারিয়া। ১০০০৩ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত এই গ্রাম। ৬০০০ ফুট উচ্চতায় নিকটবর্তী গ্রাম গোবিন্দঘাট থেকে ১০ কি.মি. ট্রেকিং করে এসে সবাই বিশ্রাম করে এখানে এসেই। যদিও ঘোড়া কিংবা হেলিকপ্টারের ব্যবস্থাও আছে।

ট্রেকিং রুটটি বেশ সুন্দর! একপাশে বিশাল খাঁদের নিচে পুষ্পাওয়াতি নদী, অন্যপাশে পাহাড়। পাহাড়ের খাঁজে খাঁজে ঝর্ণা! এক মনোরম পরিবেশ, যা হেলিকপ্টার দিয়ে গেলে বোঝা দুষ্কর।
গ্রামে ঢুকতেই প্রথমে পড়বে বিশাল পাইন বন। leopard, Asiatic_black_bear সহ নানা প্রাণীর ভয় থেকেই যায় এই অঞ্চলটিতে। তাই দুপুর ২ টার পর গোবিন্দঘাট থেকে বেস ক্যাম্পে আসা বন্ধ করে দেয় পুলিশ।

গ্রামের প্রথমেই বামদিকে পড়বে হেলিপ্যাড, তাবুতে থাকার ব্যবস্থা। যেখানে পাশের ঝর্ণার শব্দের সাথে ঘুমাতে পারবেন স্বপ্নিল ভাবে। কিছুদূর উঠলেই ছোট ছোট দোতালা বাড়ির দেখা পাওয়া যায়। অধিকাংশই হোটেল। অনেক কম খরচেই থাকা যায় হোটেলগুলোতে, অবশ্যই দামাদামি এবং রুম দেখে উঠা উচিৎ। সারাবছর প্রচুর দর্শনার্থী থাকায় ছোট্ট একটা মেডিকেল সেন্টার, পুলিশ ক্যাম্প রয়েছে গ্রামের মাঝেই।

খাওয়া দাওয়া এর জন্য খুব ভালো জায়গা মনে হয়েছে আশার পথের অন্যান্য জায়গাগুলোর তুলনায়। অনেক বিদেশী পর্যটক থাকায় পাওয়া যায় অনেক ভালো ভালো খাবার। ১৩০ রুপীর ফ্রাইড রাইস দিয়ে অনায়াসে ২জন খাওয়া যায়, খিচুরির কথা আর নাইবা বললাম!! খুবই মজার সব খাবার নিয়ে অপেক্ষায় থাকে ঘাঙ্গারিয়াবাসী।

ছোট্ট গলির মাঝে দিয়েই চলে যাওয়া যায় গ্রামের অন্যপান্তে। যার শেষ সীমানার বামে পথটি চলে যায় ভ্যালী অফ ফ্লাওয়ারস এর দিকে এবং সোজা উপরের দিকে চলে যায় হেমকুন্ডের দিক। নিরিবিলি গ্রামটা আসলেই খুব মনে রাখার মত।
যখন সারা ভারত তাপদাহে পুড়তে থাকে, তখন এই গ্রামে ৫০ রুপী দিয়ে গরম পানি কিনে গোসল কিংবা অন্যান্য কাজ করা লাগে। শীতকালের কথা আর নাইবা বললাম। শীতকালের অধিকাংশ সময়ই পুরো গ্রাম বরফের নিচে থাকে।
সব মিলিয়ে অসাধারণ একটি গ্রাম এই ঘাঙ্গারিয়া।

যেভাবে যাবেনঃ
কলকাতা থেকে ট্রেনে হারিদ্বার অথবা প্লেনে দেরাদুন নেমে ওখান থেকে জীপ নিয়ে জসিমঠ শহর হয়ে গোবিন্দঘাট। সেখান থেকে আরেকটা ঝিপে যেতে হয় ট্রেকিং পয়েন্টে। পয়েন্ট থেকে ঘোড়া কিংবা হেঁটে যেতে হবে ঘাঙ্গারিয়া। গোবিন্দঘাট থেকে ৩৩০০ রুপী দিয়ে হেলিকপ্টারে যেতে পারবেন।
Source: Odvut Mukit < Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com