ঘুরে আসুন উত্তরবঙ্গের কিছু দৃষ্টি কাঁড়া জায়গায়

ভ্রমন প্রথমে তোমাকে নির্বাক করে দিবে,তারপর গল্প বলতে বাধ্য করবে! -ইবনে বতুতা!

কম বেশি সবারই ইচ্ছে থাকে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া যাওয়ার! আমারও বহুদিনের ইচ্ছে ছিল, আর আল্লাহ্‌র রহমতে হয়েও গেল! টেকনাফ যাওয়া হইছে বেশ কয়েকবার! অনেকেই টেকনাফ গিয়ে থাকে! কিন্তু তেতুলিয়াও যে কম না সেটা না গেলে বোঝা যাবে না! তাই 20 জনের একটা গ্রুপ করে 2 টা মাইক্রো বাস নিয়ে চলে গেলাম তেতুলিয়া! তাহলে শুরু করা যাক আমাদের ভ্রমন কাহিনী, আশা করি ভাল লাগবে আর অনেক নতুন জায়গার খোজ পাবেন বিশেষ করে ভ্রমন পিপাসুরা যারা নতুন জায়গা খোজে! আমাদের ভ্রমন শুরু পাবনা থেকে! প্রথম গন্তব্য তেতুলিয়া ,এভাবে পর্যায়ক্রমে দেয়া হল-

!(সব শেসে খরচের তালিকা দেওয়া থাকবে)!

#তেতুলিয়া- তেতুলিয়া পৌছালাম ভোর 4 টার দিকে, তেতুলিয়া বাস-স্টান্ড থেকে সামন্য একটু সামনে গেলেই পাওয়া যায়_#তেতুলিয়_পিকনিক_স্পট ! গেটে খোলা থাকে ভোর বেলা থেকেই! আর এইখান থেকেই ভোর বেলা (সুর্য উঠার একটু আগে) সেই হিমালয়ের কাঞ্চনজঙ্ঘা স্পস্ট দেখায় যদি আকাশ পরিস্কার থাকে! আমরাও দেখেছিলাম বলতে হবে কপাল ভাল! এখানে আমরা 7 টা পর্যন্ত থেকে চলে গেলাম বাংলাবান্ধা

#বাংলাবান্ধ_জিরো_পয়েট- জিরোপয়েট এ যাওয়ার সময় চোখে পরে চা বাগান! এর অর্ধেক বাংলাদেশের আর অর্ধেক ভারতের! দেখতে পাওয়া যায় মহানন্দা নদী থেকে পাথর তোলা! জিরো পয়েন্ট এ বাংলাদেশ-ভারতের গেট,পতাকা , কাটা তারের বেরা,সিকিম এর দুরুত্ব(132কিমি) আর বসে থাকার জন্যে কিছু বসার ব্যবস্থা! এখানে 1 ঘন্টা থাকার পরে সকালের খাওয়ার খেয়ে চলে আসলাম পঞ্চগড় !

#পঞ্চগড়- পঞ্চগড় শহর থেকে চলে গেলাম মিরজাপুর সাহী মসজিদ ! ছোট্ট একটা মসজিদ সেই মোঘল , সাহী আমলে করা এখনও দেখার মত অবস্থায় আছে!

#ঠাকুরগা- পঞ্চগড় থেকে আসার পথে ঠাকুরগা এর রাজা টনকা নাথের স্থাপিত নিদর্শন আর বাদ দিতে পারি নি! এটাও ছিল দেখার মত!

#নীলফামারী- তারপর আসলাম নীলফামারী দুপুরের দিকে! দেখলাম বিখ্যাত চিনি মসজিদ,তিস্থা ব্যারেজ ! 2 টাই ছিল দেখার মত ! রাস্তা গুলা ছিল ধানক্ষেতের মাঝখান দিয়ে আর রাস্তার 2 পাশে শুধু গাছ আর গাছ!এর পর তিস্তা ব্যারেজে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাটিয়ে সোয়েদপুর এসে রাত্রি যাপন করলাম!

#দিনাজপুর- ভোর ভেলা হোটেল ছেরে দিয়ে সকাল সকাল পৌছে গেলাম দিনাজপুর Kantajew Temple, সেখানে একটু ঘুরে সকালের নাস্তা করে দিনাজপুরের রাজবাড়ি ঘুরে চলে গেলাম #স্বপ্ন-পুরী! স্বপ্ন-পুরী কম বেশি সবাই এসেছেন , যারা আসেননি তাদের নিমত্রণ রইল! ফ্যামিলি বা ছোট বাচ্ছা নিয়ে ঘোরার আদর্শ একটি জায়গা! শুধ এখানেই 1 দিন পুরুটা লাগে, কিন্তু আমরা আগেই অনেক বার এসেছি বলে বেশি সময় এখানে না থেকে চলে গেলাম রংপুর!

#রংপুর- রংপুর শহরটা গোছানো, আর ওইখানের তাজহাট পেলেস টা ভারতের মেমোরিয়াল ভেক্টরিয়ালেত, রংপুর গেলে কেউ এটা মিস করবেন না! বিকালের মধ্যে রৌনা দিলাম বগুড়া !

#মহাস্থানগড়- মহাস্থানগড় আসতে আসতে সন্ধ্যা 6 টা বেজে গিয়েছিল , যার জন্যে এর যাদুঘর এ ঢোকা হয় নি ! যাদুঘর বিকাল 5.30 এ বন্ধ হয়ে যায়! তবুও আমরা বাহিরের অংশে ঘুরে চলে আসলাম পাবনাতে!

প্রোগ্রামার টা ছিল 3 রাত 2 দিনের!

খরচ-
মাইক্রো ভারা (2টা) – 36,500/=[2 দিন 3 রাত]
হোটেল 1 রাত – 4,000/= [20 জন 5 রুম]
পার্কিং- সব মিলিয়ে 1200
খাওয়া- 100-150 এর মধ্যে ভাল খাওয়া পাওয়া যায়!

Source: MD AL Mamun <Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares