টাঙ্গুয়ার হাওর ভ্রমণ

টাঙ্গুয়ার হাওর এর প্রতি ট্রাভেলারদের ইদানিং আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে । আমি প্রতিদিন অনেকের কাছ থেকেই ফোন পেয়ে থাকি । তাই আজকে আমি টাঙ্গুয়ার হাওর ভ্রমণ নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছি ।

টাঙ্গুয়ার হাওর এর সাথে কি কি দেখবেনঃ

১ । টাঙ্গুয়ার হাওর ২ । বারেকের টিলা ৩ । টেকেরঘাট এবং বরছরা ৪। যাদুকাটা নদী ৫ । অদৈত মহাপ্রভুর বাড়ি ৬ । চুনাপাথরের লেক

সুনামগঞ্জ এ কি কি দেখবেনঃ

১ । রিভার ভিউ ২। হাছন রাজার বাড়ি এবং সমাধি ৩ । নারায়ন তলা ৪। ইন্ডিয়ার বর্ডার বাজার ৫ । শাহ আরেফিনের মাজার ৬। গৈরারং জমিদার বাড়ি ৭। আব্দুল করিমের বাড়ি

কি করে যাবেন: টাঙ্গুয়া যেতে হলে প্রথমে আপনাকে সুনামগঞ্জ আসতে হবে । দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে সুনামগঞ্জ অভিমুখী বাস আসে। সুনামগঞ্জ এসে বোনাস ট্রিপ হিসেবে হাছন রাজার বাড়িটি দেখে নিবেন । এক্ষেত্রে আপনাকে রাতে সুনামগঞ্জ এ রাত যাপন করতে হবে । রাতের বেলায় সুরমা নদীর পারে রিভার ভিউ এর অপরূপ মন ভোলানো রূপটি দেখে নিতে পারেন । পরদিন সকালে হাছন রাজার বাড়ি দর্শন করে সুরমা সেতুর উপর নবনির্মিত আব্দুজ জুহুর সেতুতে আসবেন ।

সেখান থেকে বড় বাস / বাইক / লেগুনা / সিএনজি করে তাহিরপুর যেতে সময় লাগবে ২ ঘণ্টা । যদি আপনি মোটর বাইকে তাহিরপুর যান তাহলে এই রাস্তায় শাহ আরেফিনের মাজার , বারেকেরটিলা , যাদু কাটা নদী , লাউরের গর , ইন্ডিয়ার বর্ডার সংলগ্ন অপরূপ কিছু ঝর্না দেখতে পারবেন। তাহিরপুর এ আসার পর সরকারি ডাকবাংলো এবং ইউনও রেস্ট হাউস এ রুম নিতে পারেন ( এক্ষত্রে রুম আগে বুকিং দিতে হয়) । রুম ভাড়া ৩০০ টাকা । আমি নিচে কেয়ারটেকার এর সেল নং দিলাম । কৃপেশ ( ডাকবাংলো ) –০১৭২৪-৯৬৮১৬১ বিপেন ( ইউনও রেস্ট হাউস ) – ০১৭৬২-২২৭৯৮০

তাহিরপুর এ ভাল মানের খাবার হোটেল নেই । তবে নিঝুম হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট এ মাজারি মানের খাবার পাবেন । রাতে গেস্ট হাউস এ থেকে পরদিন সকালে তাহিরপুর নৌকা ঘাটে গিয়ে দরদাম করে টাঙ্গুয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবেন । নৌকা ভাড়া বারগেনিং করলে ৩০০০ – ৪০০০ এর মধ্যে পাওয়া যাবে । দুপুরের খাবারের জন্য তাহিরপুর বাজার থকে প্রয়োজনীয় উপকরণ নিয়ে নিবেন । ৩-৪ ঘণ্টা পুরো টাঙ্গুয়া ভ্রমণ করে যদি সময় থাকে তাহলে মেঘালয় সংলগ্ন গ্রাম এবং গারো পাড়া বাঙ্গালভিটা দেখতে পারেন । আর রাতে নৌকাতে থাকতে চাইলে মেঘালয় সীমান্ত বর্তী গ্রাম বাঘলি তে থাকার চেষ্টা করবেন । কারন এখানে আপনি রাতের খাবারের পাশাপাশি নিরাপদে থাকবেন ।

বি. দ্র. ঃ হাওর এর পানিতে কেউ ময়লা , আবর্জনা ফেলবেন না ।লাইফ জ্যাকেট অবশ্যই সাথে রাখবেন সবসময় বড় নৌকা ভাড়া করবেন।

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com