ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্যুর প্ল্যান ও খরচা

শহুরে ব্যস্ততা আর ইট-পাথরের জঞ্জালে অতিষ্ট হয়ে যারা একদিনের ট্যুর দিয়ে একটু রিফ্রেশ হতে চান তাদের জন্য এই পোষ্ট।

আগেরদিন ঢাকা কমলাপুর/বিমানবন্দর রেলস্টেশন থেকে রাত সাড়ে ১১ টার ‘তূর্না এক্সপেস’ এ করে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করুন। ট্রেন ভোর সাড়ে ৬ টায় আপনাকে চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে নামিয়ে দিবে৷ অত:পর সেখান থেকে বাস/রিক্সা/সিএনজি করে চলে আসুন বহদ্দারহাট বাস টার্মিনালে। ওখান থেকে প্রতি ১৫ মিনিট পর পর কাপ্তাইয়ের বাস পাবেন। হেল্পারকে বলবেন জুম রেস্তোরাঁর সামনে নামিয়ে দিতে। সময় লাগবে ২-২.৩০ ঘন্টা। (কিছু বাস লিচুবাগান পর্যন্ত যায়৷ তাই আগে থেকে জিজ্ঞেস করে উঠবেন। লিচুবাগান নামিয়ে দিলে সেখান থেকে বাসে/সিএনজিতে জুম রেস্তোরাঁয় চলে আসবেন।)

এবার জুম রেস্তোরাঁয় খাবারের অর্ডার দিয়ে কায়াকিং করতে চলে যান৷ ১ ঘন্টা কায়াকিং করে এসে দুপুরের খাবার খেয়ে নিন৷ খাবার খেয়ে কিছুক্ষণ আশেপাশে ঘুরাঘুরি করুন। অত:পর ফিরতি বাসে আবার বহদ্দারহাট চলে আসুন। সেখান থেকে নিউমার্কেট মোড়ে এসে বাস/লেগুনা/সিএনজি তে করে চলে আসুন কাটগড়। কাটগড় থেকে রিক্সা/অটো তে করে চলে যান নেভাল। এবার পুরো বিকেলটা নেভালে কাটিয়ে কাঁকড়া ফ্রাই, পেয়াজু আর ডাবের পানি দিয়ে নাস্তা সেরে রিক্সা/অটোতে করে সন্ধ্যার আগে আগে চলে আসুন পতেঙ্গা সী বিচে।

পতেঙ্গায় সূর্যাস্ত উপভোগ করে সন্ধ্যায় চলে যান সৈকত সংলগ্ন বার্মিজ মার্কেটে। সেখানে টুকটাক কেনাকাটা করে নিন।

এবার ফেরার পালা। একই রাস্তায় পতেঙ্গা থেকে কাটগড় হয়ে চলে আসুন নিউমার্কেট। সেখানে কয়েকটা ভাল হোটেল পাবেন ডিনার করার জন্য৷ ডিনার করে আবার রাতের ফিরতি ট্রেনে উঠে ভোরে ঢাকা চলে আসুন। সাথে নিয়ে আসুন অসম্ভব সুন্দর কিছু স্মৃতি আর ঝেড়ে ফেলুন সকল হতাশা ও ক্লান্তি।

★★ ট্যুর প্ল্যানঃ

ঢাকা –> চট্টগ্রাম রেলস্টেশন (নিউমার্কেট) –> বহদ্দারহাট –> জুম রেস্তোরাঁ –> বহদ্দারহাট –> নিউমার্কেট –> কাটগড় –> নেভাল –> পতেঙ্গা –> কাটগড় –> নিউমার্কেট (চট্টগ্রাম রেলস্টেশন) –> ঢাকা

★★ এবার আসি খরচ এর কথায়ঃ (আমরা মোট চারজন ছিলাম)

* ট্রেনঃ (৩৫০*৪) = ১৪০০ টাকা
* সকালের নাস্তাঃ (৩০*৪) = ১২০ টাকা
* নিউমার্কেট টু বহদ্দারহাট বাস ভাড়াঃ (১৫*৪) = ৬০ টাকা
* বহদ্দারহাট টু জুম রেস্তোরাঁ ভাড়াঃ (৬০*৪) = ২৪০ টাকা
* জুম রেস্তোরাঁয় প্রবেশঃ (২০*৪) = ৮০ টাকা
* কায়াকিংঃ ২ বোট = ৪০০ টাকা (এমনিতে ২৫০ টাকা কিন্তু স্টুডেন্ট আইডি দেখালে প্রতি বোটে ৫০ টাকা ছাড়)
* দুপুরের খাবারঃ (১২০*৪) = ৪৮০ টাকা
* জুম রেস্তোরাঁ থেকে বহদ্দারহাটঃ (৬০*৪) = ২৪০ টাকা
* বহদ্দারহাট টু নিউমার্কেট বাস ভাড়াঃ (১৫*৪) = ৬০ টাকা
* নিউমার্কেট টু কাটগড় বাসঃ (২০*৪) = ৮০ টাকা
* কাটগড় টু নেভাল অটোঃ (২০*৪) = ৮০ টাকা
* পিয়াজু + কাঁকড়া + ডাবঃ (২০+৪০+৪০)*৪ = ৪০০ টাকা
* নেভাল টু পতেঙ্গাঃ (১০*৪) = ৪০ টাকা
* পতেঙ্গা টু কাটগড়ঃ (১০*৪) = ৪০ টাকা
* কাটগড় টু নিউমার্কেট বাসঃ (২০*৪) = ৮০ টাকা
* রাতের খাবারঃ (১২০*৪) = ৪৮০ টাকা
* চট্টগ্রাম টু ঢাকা ট্রেনঃ (৩৫০*৪) = ১৪০০ টাকা

★★ মোট ৪ জনের খরচঃ

(১৪০০ + ১২০ + ৬০ + ২৪০ + ৮০ + ৪০০ + ৪৮০ + ২৪০ + ৬০ + ৮০ + ৮০ + ৪০০ + ৪০ + ৪০ + ৮০ + ৪৮০ + ১৪০০ = ৫৬৮০ টাকা)

★★ পার পার্সন খরচ (৫৬৮০ ÷ ৪) = ১৪২০ টাকা

অর্থাৎ হাবিজাবি খরচ মিলিয়ে ১৫০০ টাকার ভেতর অনেক সুন্দর ও মনোমুগ্ধকর একটি ‘ডে ট্যুর’ কমপ্লিট হয়ে যাবে। আর আপনি যদি ‘বাজেট ট্রাভেলার’ হন তাহলে মেইল ট্রেনে যাতায়াতের মাধ্যমে আরো ৪০০ টাকা সেইভ করতে পারবেন।

বিঃদ্রঃ কাপ্তাই এলাকা খুব পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন। নিজের দেশকে পরিচ্ছন্ন রাখা আমাদের সবার দায়িত্ব ও কর্তব্য। কোথাও ঘুরতে গিয়ে ময়লা যেখানে সেখানে ফেলবেন না। ডাস্টবিনে ফেলবেন। ডাস্টবিন আশেপাশে না থাকলে একটা পলিথিন এ রেখে ব্যাগ এর একপাশে রাখুন। ডাস্টবিন দেখলে ঐখানে ফেলবেন।

#ডে_ট্যুর
#কাপ্তাই
#জুম_রেস্তোরাঁ
#কায়াকিং
#নেভাল
#পতেঙ্গা

Source: Areefin Turzo <Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares