দার্জিলিং ভ্রমন : ৭০০০ টাকায়

ভিসা কাজ টাই হচ্ছে একটু ঝামেলার কিন্তু Indian এমবেসি থেকে ভিসা ক্যাম্প মাধ্যমে ৬০০ টাকায় ভিসা দিচ্ছে । বুডিমারি বর্ডার / হিলি বর্ডার দিবেন ভিসা Apply সময় । ভিসা আমার আগেই ছিল , ৬০০ টাকায় ভিসা কথা বলছি কম খরচে যারা যাবেন তাদের জন্য । সামনে ঈদ , পূজা আগে আবার ভিসা ক্যাম্প দিতে পারে, ই টোকেন এ ভিসা দিচ্ছে এখন খরচ ২০০০/৪০০০ টাকা ।আমার লেখার উদ্দেশ্য ভিসা হবার পর দার্জিলিং ভ্রমন খরচ সম্পর্কে বিস্তারিত:

ঢাকা থেকে শিলিগুড়ি বাস ভাড়া ১০০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা , ৫০০ টাক ট্যাক্স দিতে হয় । আমি যেমন ঘুমের জন্য Ac বাস পছন্দ করি অনেকেই বাজেট সল্পতার জন্য Non -Ac যেতে পারেন, আর কমে যাওয়া সম্ভব । কিন্তু Direct শিলিগুড়ি বাস নিবেন যেন হাতে সময় থাকে । রাতের বাসে ঢাকা থেকে রওনা দিলে সকাল ১০/১১ টার মাঝেই শিলিগুড়ি পৌঁছে যাবেন । এই সময় টায় শিলিগুড়ি শহর ঘুরে দেখতে পারেন । দুপুরের খাবার শিলিগুড়ি থেকে খেয়ে নিবেন , শিলিগুড়ি শহরে দার্জিলিং মোড়ে দার্জিলিং যাবার জন্য সুম , মাহিন্দরা জিপ পাবেন ভাড়া ২০০ রুপি ।
ও হে আপনি ডলার ভাঙ্গিয়ে নিবেন শিলিগুড়ি শহর থেকেই , বর্ডার থেকে এখানেই ডলার দাম ভাল পাবেন । যাই হোক আমরা আমাদের দার্জিলিং রুট আসি , জিপ দুপুর পর উঠে পরবেন খুব বেশি দেরি হলে পরে জিপ পাবেন না। দার্জিলিং যেতে সময় লাগবে ৩/৪ ঘন্টা , শিলিগুড়ি থেকে রওনা হওয়ার প্রথম ২০ মিনিট রাস্তা সমতল পাবেন এর পর শুধুই মেঘ পাহাড়ের খেলা । দার্জিলিং শহরে সন্ধার সময় পৌঁছে যাবেন আসা করি , Traffic জন্য একটু সময় বেশি লাগতে পারে । দার্জিলিং রেল ষ্টেশন পাশেই নামতে হবে , এখন হোটেল খোঁজার পালা , দার্জিলিং শহরের মাঝে সমতল একটি যায়গা আছে নাম ‘ ম্যালে ‘ ।
ম্যালের আসে পাসে হোটেল খুজবেন , না পাইলে আমার মত অনেক রাত পর্যন্ত হোটেল খুজতে হতে পারে ।আমি গত মাসেই ছিলাম , এই সময় টাই দার্জিলিং ভ্রমন বেষ্ট সময় তাই হোটেল পাওয়া একটু জটিল ছিল । যাই হোক আমি অনেক খোঁজার পর দার্জিলিং রেল ষ্টেশন পাশেই ষ্টার লজ পেয়েছিলাম , এটি জিপ যে জায়গায় (দার্জিলিং রেল ষ্টেশন সামনে) নামিয়ে দেয় তার একটু উপরেই ।
হোটেল Cheq. In করার আগেই ৩ বেলা খাবার কথা বলে নিবেন , সব হোটেল এই ব্যাবস্থা থাকে , বাইরে খাবার খরচ অনেক বেশি । আমার হোটেল খরচ ছিল ৬০০ রুপি (৬০০*৪ আমরা ৪ জন ছিলাম এক রুমে ) থাকা খাওয়া সহ , আমি হোটেল দালাল সহযোগিতায় আসছি তাই ১০০ রুপি বেশি নিয়েছে , ম্যানেজার পরে বলেছে আমাদের । আমি ২ রাত ছিলাম , হোটেল Cheq in করার পর ম্যানেজার কে বললেই সকালে টাইগার হিল সহ আরো ৭ টা জায়গায় দেখার ব্যাবস্থা ওরাই করে দিবে, খরচ ৬০০ রুপি । আমরা রাতে হোটেল উঠার পরের দিন ভোর রাতেই আবার বের হই , তাই যাদের জার্নি দুর্বলতা তারা প্রথম দিন শহর এর আশে পাশে ঘুরে দেখতে পারেন । আমরা সারা দিন টাইগার হিল , রক গার্ডেন , টেমপল , টি গার্ডেন ঘুরে বিকেল আবার হোটেল নামি ।
সন্ধার পর ম্যালে ( সমতল মাঠ ) বসে আড্ডা আর মম খাইয়াই পার করে দিতে পারেন ।
২য় দিন মার্কেট গুলো ঘুরে দেখে কেনাকাটা করে হোটেল থেকে দুপুরের খাবার খেয়ে জিপে করে শিলিগুড়ি শহরের উদ্দেশে রওনা হই , খরচ ২০০ রুপি, সময় ২/৩ ঘন্টা । শিলিগুড়ি শহরে বিকেলেই পৌঁছাই , একটা হোটেল ব্যাগ রেখে আবার কেনাকাটার জন্য মল ঘুরতে যাই , হোটেল খরচ ৪ জন এর জন্য এক রুম ৫০০ রুপি , ১ জনের ১২৫ রুপি । এখানে হোটেল খাবার কোন দরকার নেই , খাবার হোটেলেই ভাল , রাতের এবং সকালের খাবার খরচ ১৫০ রুপি ।
৩য় দিন সকালেই বর্ডার লোকাল বাস করে বর্ডার চলে আসা যায় , খরচ ৫০ রুপি, সময় ১ ঘন্টা ।বর্ডার পার হয়ে ১০০০/১২০০ টাকায় টিকেট কেটে রাতে ঢাকা পৌঁছাই । আমার এই লেখার উদ্দেশ্য , বর্তমান খরচ সম্পর্ক ধারনা দেওয়া , এখানে ১ জন এর ন্যুনতম খরচ টাই বলা হয়েছে । বাংলা টাকা ৩০০০/৩৫০০টাকা এবং ২৫০০ রুপি খরচ হয়েছে , সর্ব মোট ৬৫০০/৭০০০ টাকা খরচ ।
ভাই , আমার ভিসা আগেই ছিল । আমি শুধু কম খরচ ব্যপারটাই বুঝাচ্ছি , আমার সফর কিভাবে কখন কই কই ঘুরছি সেটা নিয়ে বলছি না ।
এটা আমার প্রথম লেখা , আমি জীবনেও লেখালেখির চেষ্টা করি নাই । সুতরাং , আমার সকল ভুল ক্ষমা সুন্দর ভাবে দেখবেন । ধন্যবাদ

Post Copied From: সাজিদ হাসান প্লাবন > ‎Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com