সর্টকাট ট্যুর প্লান

যারা এই শীতে কুয়াকাটা যেতে চাচ্ছেন

#ট্যুর_প্লান:

ঢাকা থেকে বিকালের লঞ্চে উঠে পরদিন খুব সকালে পটুয়াখালি লঞ্চঘাট নামবেন। ১০/- টাকা দিয়ে চৌরাস্তা এসে পটুয়াখালির গাড়িতে উঠে পরবেন। ২ ঘন্টার মধ্যেই কুয়াকাটা।

আপনি চাইলে ঢাকা-বরিশাল রুটের লঞ্চেও যেতে পারেন। বরিশাল থেকে কুয়াকাটার সরাসরি বাস আছে। সেক্ষেত্রে বাসে (+-)৩০ কি:মি: বেশি জার্নি করতে হবে।

আবার ঢাকার গাবতলি/সায়দাবাদ থেকে সরাসরি কুয়াকাটার বাসেও যেতে পারেন।

১ম দিন সকালে হোটেলে চেক ইন। দুপুরে সুমুদ্দ্রস্নান। একটা মোটরসাইকেল ভাড়া করবেন ৬০০-৮০০ টাকায়। বিকালে লেবুর বন, তিন নদির মোহনায় সুর্যাস্ত দেখবেন।

২য় দিন: খুব ভোরে ৪:৩০ ঐ মোটরসাইকেল অয়ালা রাই আপনাকে নিয়ে যাবে গংগামতির চর। সুর্য্যদয়, লাল কাকড়ার চর দেখে ফেরার পথে রাখাইন পল্লি, মার্কেট, কুয়া, বৌদ্ধ মন্দির, ২০০ বছরের পুরাতন নৌকা দেখে হোটেলে ফিরবেন। দুপুরে খাবার পর ফাতরার বনে ঘুরে আস্তে পারেন। রাতের গাড়িতে ফিরবেন। লঞ্চে ফিরতে চাইলে অবশ্যইই বিকাল ৫:০০ টার আগে পটুয়াখালি লঞ্চঘাট থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে ঐ দিন ফাত্রার বন প্লান থেকে বাদ দিতে হবে।

চাইলে বরিশাল হয়েও লঞ্চে ফিরতে পারেন। বরিশাল থেকে ঢাকার শেষ লঞ্চ ছাড়ে রাত ৯:০০ টায়।

#খরচা_পাত্তি:
ঢাকা-পটুয়াখালি লঞ্চে
-ডেকে (+-)৩০০/-
-কেবিনে-১০০০/২০০০/- সিংগাল/ডাবল।

পটুয়াখালি লঞ্চঘাট থেকে চৌরাস্তা অটো -১০/-
চৌরাস্তা-কুয়াকাটা বাসে ১৪০/-

মোটরসসাইকেল দুইদিন দুইজন (+-)৭০০/-

ফাত্রার বনে ট্রলার প্যাকেজ (+-) ২৩০/-

হোটেল ডাবল রুম ভাড়া ১০০০-২৫০০/- মাঝারি মানের।

নাস্তা ৪০-১০০/-
দুপুর/রাতের খাবার ১০০-২৫০/- পার মিল পার হেড।

বাসভাড়া: নন এসি
গাবতলি-কুয়াকাটা
সাকুরা, গোল্ডেন লাইন, কনক পরিবহন(+-)৭০০/-

সায়দাবাদ-কুয়াকাটা
সাকুরা, কুয়াকাটা এক্সপ্রেস ৫৫০/-

Be smart,
be a traveller
Follow travel ethics
Happy travelling 

Share:

Leave a Comment

Shares
error: Content is protected !! --vromonkari.com