সাজেক বান্দরবান সীতাকুণ্ড ভ্রমণ বিতান্ত

ঢাকা থেকে সরাসরি কুয়াকাটা খুব কম বাস যায়, ভালো মানের বাস খেপুপাড়া নামিয়ে দেয় ভাড়া ৬২০ নন এসি,সেখান থেকে আবার কুয়াকাটা ৪০-৫০ জনপ্রতি। গাবতলী থেকে সরাসরি সাকুরা হানিফ গোল্ডেন লাইন যায় ৬২০ নন এসি। যেহেতু কম খরচ করা লক্ষ্য সেক্ষেত্রে সায়দাবাদ থেকে সেমি চেয়ারকোচে বেপারি পরিবহন বা কুয়াকাটা এক্সপ্রেসে উঠে পড়ুন টিকিট কেটে, মাত্র ৫০০-৫৫০ নিবে সরাসরি কুয়াকাটা।

সকালে গিয়ে পৌছাবেন, হোটেল নিয়ে কোনো সমস্যা নাই খুব ভালো হোটেল আছে একেবারে নিশ্চিন্তে বাস থেকে নামলেই হোটেল বয় রা আপনাকে নানা অফার দিবে, যাচাই-বাছাই করে দরদাম করে উঠে পড়ুন। ৪ জন থাকা যায় নন এসি হোটেল সৌকতে ভাড়া মাত্র ১০০০ টাকা(বীচ থেকে ৪০ সেকেন্ড দুরত্বে)।

নাস্তা করে ফ্রেশ হয়ে বিচে কিছুক্ষণ আরাম আয়েশ করে ঝাপাঝাপি করুন। দুপুরে রুমে বিশ্রাম নিয়ে ভালো মানের হোটেল দেখে বসে পড়ুন, ১২০ টাকায় ভালো লাঞ্চ করেছি।
বিকেলে আসেপাশে ঘুড়ে ফিস মারকেটে চলে আসুন। আমরা চারজন খেতে পারে প্রায় ৩ কেজি একটা টুনা নেই ৭০০ টাকায়। বেশ বড়সড়, বারবিকিউ করে খাবেন অবশ্যই। এরপর ২-৩ মিনিট হেটে মানুষকে জিজ্ঞেস করে চলে যান কুয়াকাটার কুয়া ও বৌদ্ধ মন্দির। এভাবে প্রথম দিন কাটিয়ে দিন।

পরদিন ভোড়ে উঠে চারজন চেক আউট করে বাসের টিকিট কেটে একটি ভ্যান ঠিক করি যেটা আমাদের কুয়াকাটার সব ঘুড়িয়ে দেখাবে। ভ্যান নিয়ে মাথাব্যথা নাই, শত শত আছে। যেনে রাখা ভালো কুয়াকাটা দুভাগে বিভক্ত ঘুরবার জন্য তবে আপনি একেবারে ঘুরলে ৪০০-৫০০ টাকা বাচবে। তাই একটি ভ্যান ঠিক করি ৭০০ টাকায়। অবশ্যই দামাদামি করতে হবে। ঘুরে দেখাবে মিশ্রীপাড়া বৌদ্ধ মন্দির, রাখাইন গ্রাম, মোহনা(এখান থেকে সুন্দরবন দেখা যায়), ঝাউবন, লাল কাকড়ার চর। শুটকি পল্লি,লেবুর চড় ইত্যাদি নাম না জানা আরও অনেক। ঘুরার সময় এতো সুন্দর রাস্তায় আপনি হারিয়ে যেতে বাধ্য, পরিবেশ তো অপরুপ। সেদিন সকালে আমার নাস্তা আর দুপুরে লাঞ্চে খরচ হয় ১৫০(৩০+১২০)। সারাদিন ঘুরে শেষ বিকেল টা কাটান লেবুর চড়ে তারপর ফিরে এসে রাত ৮ টার বাসে করে চলে আসি যান্ত্রিক শহরে।

আনুমানিক খরচঃ

বেপারী বাসে আসা যাওয়া ৫০০+৫০০=১০০০
সকালে দুদিন নাস্তা ৬০
হোটেল ভাড়া ১০০০÷৪= ২৫০
লাঞ্চ দুদিন ১২০+১২০= ২৪০
ভ্যানে ঘুড়া ৭০০÷৪ = ১৭৫
ডিনার দুদিন ১২০+১২০= ২৪০
মাছ ৭০০÷৪= ১৭৫

মোট ২১৪০৳

এই খরচ কম বেশি হতে পারে আপনারা চা ডাব কলা অন্যান্য খরচ এর উপর নির্ভর করে।

পরিশেষে বলতে বাধ্য আমাদের জন্যই আজ পরিবেশ ধংষের মুখে তাই ময়লা আবর্জনা যথাস্থানে ফেলুন এবং নিজের পাশাপাশি অন্যকে সচেতন করুন।

Source: Iftekhar Kushal‎ <Travelers of Bangladesh (ToB)

Share:

Leave a Comment

Shares